আজিজুল ইসলাম বারী,লালমনিরহাট প্রতিনিধি: লালমনিরহাটের তথাকথিত কয়েকজন মুক্তিযোদ্ধা নামধারী ব্যক্তির সদর উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা যাচাই বাছাই কমিটির বিরুদ্ধে মিথ্যাচারের প্রতিবাদে জেলা ও সদর উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা ইউনিট কমান্ড মানববন্ধন ও সংবাদ সম্মেলন করেছে। সোমবার দুপুরে থানা রোডে অবস্থিত মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্সের সামনে ঘন্টাব্যাপী মানববন্ধনে অংশ নেয় ক্যাপ্টেন (অবঃ) আজিজুল হক বীর প্রতীকসহ জেলার প্রকৃত মুক্তিযোদ্ধাবৃন্দ। এসময় তারা ভুয়া মুক্তিযোদ্ধাদের মিথ্যাচারের বিরুদ্ধে তীব্র নিন্দা ও কঠোর প্রতিবাদ করে সরকারী সকল সুযোগ সুবিধা অবিলম্বে বাতিলের দাবি জানান।

এর আগে বেলা সাড়ে ১২টায় কমপ্লেক্স মিলনায়তনে ক্যাপ্টেন (অবঃ) আজিজুল হক বীর প্রতীকের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন, জেলা মুক্তিযোদ্ধা ইউনিট কমান্ডার মেসবাহ উদ্দিন আহমেদ। লিখিত বক্তব্যে তিনি অভিযোগ করে বলেন, লালমনিরহাটের তথাকথিত কয়েকজন মুক্তিযোদ্ধা নামধারী ব্যক্তি উদ্দেশ্য প্ররোদিত, বানোয়াট, নিকৃষ্ট, জিঘাংসা চরিতার্থ করার জন্য একটি সংবাদ সম্মেলন করে। ওই সংবাদ সম্মেলনে উল্লেখিত তথ্যাদি মিথ্যা, ভিত্তিহীন, কাল্পনিক এবং মানহানিকর দাবী করে তিনি ওই সকল কুরুচিপূর্ন বক্তব্যে তীব্র প্রতিবাদ ও নিন্দা জানান। তিনি বলেন,যে সমস্ত ব্যক্তি যাচাই-বাছাইয়ে ক্ষুব্ধ হয়েছে তাদের আপিল করার সুযোগ রয়েছে।

তারা আপিল করতে পারবেন এ্টাই নিয়ম। তারা আইনী পক্রিয়ায় না গিয়ে ইউনিট কমান্ডারকে ব্যক্তিগত ভাবে আক্রমন করছে। তার পরিবার সমাজ, মুক্তিযোদ্ধাগণসহ সারাদেশে তাহাকেহেয় প্রতিপন্ন কওে জাতীয় পত্রিকা এবংটেলিভিশনে ও সামাজিক গণমাধ্যমের মাধ্যমে সংবাদ প্রচার করা হচ্ছে। তিনি বলেন, পরিপত্র অনুযায়ী অনেকের বৈধ কাগজপত্র বা স্বাক্ষী না থাকায় তাদের আবেদন বাতিল করে দেয়া হয়। ফলে কিছু ভুয়া মুক্তিযোদ্ধা সদর উপজেলার যাচাই বাছাই কমিটির বিরুদ্ধে মিথ্যাচার করে আসছে। তিনি এর তীব্র নিন্দা ও কঠোর শাস্তির দাবি জানিয়েছেন।

তিনি আরও বলেন, আগামী ১৫ দিনের মধ্যে ওইসব ভুয়া মুক্তিযোদ্ধাগণ সাংবাদিক সম্মেলনে উথ্থাপিত বক্তব্য প্রত্যাহার করে ক্ষমা প্রার্থনা না করলে সংবাদ সম্মেলনকারীদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে বলে জানান।উল্লেখ্য যে, গত শনিবার মুক্তিযোদ্ধাদের যাচাই বাচাইয়ে অনিয়মের অভিযোগ তুলে সংবাদ সম্মেলন কওেজেলা মুক্তিযোদ্ধা ইউনিট কমান্ডার মোসবাহ উদ্দিন আহমেদের গ্রেফতারপূর্বক শাস্তির দাবি জানিয়েছিলেন বঞ্চিত মুক্তিযোদ্ধাদের একাংশ।সংবাদ সম্মেলন ও মানববন্ধনে অন্যান্যদেও মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা কমান্ডারমোঃ আবু বকর সিদ্দিক, কেন্দ্রিয় কমান্ড কাউন্সিলের প্রতিনিধি সদস্য আমিরুল ইসলাম, মুবিম এর প্রতিনিধি সদস্য ফরিদহোসেন, জামুকা প্রতিনিধি সদস্যমোঃ আফসার আলী ওজেলা কমান্ডারের প্রতিনিধি সদস্যমোঃ খাজের আলীসহদেড় শতাধিক মুক্তিযোদ্ধা।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য