কুড়িগ্রামের উলিপুর উপজেলার কৃষ্ণমঙ্গল স্কুল এ- কলেজে শিক্ষক নিয়োগে ব্যাপক অনিয়ম ও আর্থিক লেনদেনের অভিযোগ প্রমানিত হওয়ায় ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ মোঃ মাহমুদ হাসানকে কেন অপসারন করা হবে না। তার জবাব চেয়ে দিনাজপুর বোর্ডের চেয়ারম্যানকে কৈফিয়ত তলব করেছে শিক্ষা মন্ত্রনালয়।

জানা গেছে, শিক্ষা মন্ত্রনালয়ের যুগ্ন সচিব সালমা জাহান মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগ শাখা/১১(মাধ্যমিক-২) স্বারক্ষ নং ৩৭/০০/০০০০/০৭২/৩৯/০৬/১৬/৫২৩ তারিখ ১৯/০৬/২০১৭ইং। কৃষ্ণমঙ্গল স্কুল এ- কলেজে শিক্ষক নিয়োগে ব্যাপক অনিয়ম ও আর্থিক লেনদেনের অভিযোগ প্রমানিত হওয়ায় ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ মাহমুদ হাসানকে স্বীকৃতি প্রাপ্ত বেসরকারী মাধ্যমিক স্কুলের শিক্ষকগনের চাকুরী বিধিমালা ১৯৭৮’র ১১(ডি)ধারা অনুযায়ী কেন চাকুরী থেকে অপসারন করা হবে না।

১৫ দিনের মধ্যে তার জবাব চেয়ে মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিকশিক্ষা বোর্ড দিনাজপুর চেয়ারম্যানকে কৈফিয়ত দিতে বলা হয়েছে। উল্লেখ্য ওই কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ মাহমুদ হাসানের বিরুদ্ধে নিয়ম বর্হিভুত ২ শাখা শিক্ষকের এমপি ও বন্ধ সহ ব্যাপক অনিময় ও দুর্নীতির অভিযোগ রয়েছে।

সংবাদ সংস্থা এফএনএস সুত্রে জোনা যায়, মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক দিনাজপুর শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যানের সাথে তার মুঠো ফোনে য়োগাযোগ করা হলে তাকে পাওয়া যায় নাই।

ওই কলেজের সভাপতি প্রকৌশলী শাসছুল ইসলাম জাানান, তিনি এ বিষয়ে কোন চিঠি পান নাই। তবে তার বিরুদ্ধে পূর্বের অনেক অনিয়ম দুর্নীতি রয়েছে। ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ মাহমুদ হাসানের সাথে যোগাযোগ করলে তিনি চিঠি পাওয়ার কথা স্বীকার করে বলেন তার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করছে তারই কিছু ষ্টাফ।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য