উজানের পাহাড়ী ঢলে লালমনিরহাটের ডালিয়া পয়েন্টে তিস্তা নদীর পানি বৃদ্ধি পেয়েছে। রবিবার সকালে হাতীবান্ধার তিস্তা ব্যারাজের ডালিয়া পয়েন্টে বিপদসীমার ৮ সে.মি. উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। তবে বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে পানি কমছে বলে সংশ্লিষ্ট পানি উন্নয়ন বোর্ড সুত্র জানিয়েছে। এতে জেলার হাতীবান্ধাসহ চার উপজেলার নদীর তীরবর্তী ১৩টি গ্রাম বন্যা কবলিত হয়েছে বলে জানিয়েছেন হাতীবান্ধা উপজেলা ত্রান ও প্রকল্প বাস্তবায়ন (পিআইও) কর্মকর্তা।

জানা যায়, উজানের ঢলে শুক্রবার রাত থেকে হঠাৎই তিস্তার পানি বৃদ্ধি পেতে শুরু করে। পানিবন্দি হয়ে পড়েছেন প্রায় দেড় হাজার পরিবার। শনিবার সকালে ডালিয়া পয়েন্টে তিস্তার পানি বিপদ সীমার ১১ সেঃ মিঃ উপর দিয়ে প্রবাহিত হতে থাকে। বিকেল নাগাদ পানির পরিমান কিছুটা কমে আসলেও রাতে আবার পানি বৃদ্ধি পায় বলে পাউবো সুত্র জানিয়েছে।

ডালিয়া পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী মোস্তাফিজুর রহমান জানান, পরিস্থিতি মোকাবেলায় ব্যারাজের সবকটি গেট খুলে দিয়ে পানি নিয়ন্ত্রন করা হচ্ছে। এদিকে বন্যা কবলিত এলাকা পরিদর্শন করেছেন লালমনিরহাট জেলা প্রশাসক আবুল ফয়েজ মোঃ আলা উদ্দিন খাঁন। তিনি জানান, নদীতীরবর্তী মানুষদের নিরাপদ স্থানে সরিয়ে নেয়া হয়েছে। দুর্গত মানুষের মাঝে শুকনা খাবার বিতরণের প্রস্তুতি নিয়েছে জেলা প্রশাসন।

হাতীবান্ধা উপজেলা ত্রান ও প্রকল্প বাস্তাবায়ন কর্মকর্তা (পিআইও) ফেরদৌস আহমেদ রবিবার দুপুরে সাংবাদিকদের বলেন, শুক্রবার রাত থেকে প্রায় দেড় হাজার পরিবার পানিবন্দী আছে বলে শুনেছি। তাদের জন্য প্রয়োজনীয় ত্রানের বরাদ্দ চেয়ে জেলা প্রশাসনের কাছে আবেদন পাঠানো হয়েছে।

ডালিয়া পানি উন্নয়ন বোডের নির্বাহী প্রকৌশলী মোস্তাফিজুর রহমান সাংবাদিকদের জানিয়েছেন, উজানের ঢলের কারনে তিস্তার পানি ডালিয়া পয়েন্টে বিপদসীমার ৮ সেন্টিমিটার ওপরে ছিল। কিন্তু এখন (দুপুর) তা কমতে শুরু করেছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য