সিরিয়ার ইদলিব প্রদেশে প্রায় তিন মাস আগে চালানো রাসায়নিক হামলা সম্পর্কে জাতিসংঘের রাসায়নিক অস্ত্র নিষিদ্ধকরণ সংস্থা- ওপিসিডাব্লিউ যে প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে তার কঠোর নিন্দা জানিয়েছে দামেস্ক। সিরিয়া বলেছে, সন্ত্রাসীদের দেয়া তথ্যের ভিত্তিতে এই ‘মিথ্যা’ প্রতিবেদন তৈরি করা হয়েছে।

সিরিয়ার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় শনিবার এক বিবৃতিতে বলেছে, সিরিয়া বিষয়ক প্রতিবেদন তৈরির সময় ওপিসিডাব্লিউ পক্ষপাতদুষ্ট ও ত্রুটিপূর্ণ তথ্য এড়িয়ে গেলে ভালো করত। বিবৃতিতে বলা হয়, গত ৪ এপ্রিল ইদলিবের খান শেইখুনে চালানো হামলা সম্পর্কে ওপিসিডাব্লিউ যে প্রতিবেদন তৈরি করেছে তা ‘অসুস্থ মস্তিষ্ক থেকে উৎসারিত।‘’

বিবৃতিতে যেসব দেশ ও পক্ষ সিরিয়া বিষয়ে সত্য প্রকাশে বাধা দেয় তাদের প্রভাবের ঊর্ধ্বে উঠে নিরপেক্ষ ও গ্রহণযোগ্য প্রতিবেদন প্রস্তুত করতে ওপিসিডাব্লিউ’র প্রতি আহ্বান জানানো হয়েছে।

শুক্রবার প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে ওপিসিডাব্লিউ বলেছে, খান শেইখুনের বিতর্কিত হামলায় সারিন গ্যাস ব্যবহার করা হয়েছে। তবে প্রতিবেদনে সিরিয়ায় সংঘর্ষরত কোনো পক্ষকে ওই হামলার জন্য দায়ী করা হয়নি। হামলায় অন্তত ৯০ জন নিহত হয়েছিল।

ওপিসিডাব্লিউ’র প্রতিবেদন প্রকাশিত হওয়ার পরপরই আমেরিকা ও মধ্যপ্রাচ্যে তার মিত্র দেশগুলো ইদলিবের হামলার জন্য সিরিয়ার প্রেসিডেন্ট বাশার আল-আসাদকে দায়ী করতে থাকে। এসব দেশ অভিযোগ করে, খান শেইখুনের বিমান হামলায় রাশিয়াও অংশগ্রহণ করেছে।

সিরিয়া ও রাশিয়া এই অভিযোগ শুরু থেকে প্রত্যাখ্যান করে এসেছে। মস্কো অবশ্য বলেছে, সিরিয়া ও রাশিয়ার জঙ্গিবিমানগুলো হয়ত এমন স্থানে বোমাবর্ষণ করেছে যেখানে পশ্চিমা সমর্থিত সন্ত্রাসীরা রাসায়নিক অস্ত্র মজুদ করেছিল।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য