মো. জাকির হোসেন, সৈয়দপুর (নীলফামারী) থেকেঃ নীলফামারীর সৈয়দপুরে নৈশ কোচের সাথে ব্যাটারী চালিত অটোভ্যানের সংঘর্ষে চাপা পড়ে ভ্যানচালক নিহত ও অপর এক যাত্রী আহত হয়েছে। গত বৃহস্পতিবার (২২ জুন) রাত ১০টায় উপজেলার রংপুর-সৈয়দপুর মহাসড়কের কামারপুকুর ইউনিয়নের চিকলী বাজার এলাকায় এ দূর্ঘটনা ঘটে। নিহত ওই ভ্যানচালকের নাম মো. আলম উদ্দিন (৪০)। তার বাড়ি রংপুরের পাগলাপীর এলাকার নেকীরহাট গ্রামে।

কামারপুকুর ইউপি চেয়ারম্যান রেজাউল করিম লোকমান জানান, রাতে কামারপুকুরের কাদেরের মোড় নামক স্থান অতিক্রম করছিল ভ্যানটি, এসময় সৈয়দপুর থেকে ঢাকাগামী কেয়া এন্টারপ্রাইজের একটি নৈশ কোচ (ঢাকা মেট্রো-ব- ১১-৫৮৩০) পেছন থেকে ভ্যানটিকে সজোরে ধাক্কা দেয়।

ফলে ভ্যানচালক ও ভ্যানে থাকা এক যাত্রী রাস্তায় ছিটকে পড়ে এবং ভ্যানটি বাসের নিচে ঢুকে যায়। এলাকাবাসী আহতদের উদ্ধার করে সৈয়দপুর ১০০ শয্যা হাসপাতালে ভর্তি করলে তাদের অবস্থা আশংকাজন হওয়ায় সেখানকার কর্তব্যরত চিকিৎসক তাদের রংপুর মেডিক্যাল কলেজে রেফার্ড করেন।

তিনি বলেন, বাসের নিচে ভ্যান আটকে গেলেও ঐ অবস্থাতেও বাসটি নিয়ে পালাতে থাকে চালক। একপর্যায়ে চিকলী বাজারে গিয়ে বাসটি আটকে যায়। ঘটনা বুঝতে পেরে বিক্ষুদ্ধ জনতা বাসটির চালক ও হেলপারকে আটক করে ব্যাপক গণপিটুনী দেয়।
সৈয়দপুর ১০০ শয্যা হাসপাতালের অফিস সহায়ক আরিফ হোসেন জানান, আহতদের অবস্থা আশংকাজনক হওয়ায় তাদের রমেকে নেয়ায় পথে ভ্যানচালকের মৃত্যু হয় এবং অপর ব্যক্তিরও অবস্থা গুরুতর।

সৈয়দপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আমীরুল ইসলাম জানান, পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছে বিক্ষুদ্ধ জনতার রোষানল থেকে ওই বাসের চালক ও হেলপারকে আটক ও উদ্ধার করে থানায় আনে। বাসটিকেও থানায় রাখা হয়েছে। এ ঘটনায় আইনী প্রক্রিয়া চলমান রয়েছে।

প্রসঙ্গত, এ ঘটনার মাত্র একদিন আগে গত বুধবার (২১ জুন) একই স্থানে পঞ্চগড় থেকে ঢাকাগামী একটি মাইক্রোবাসের সাথে দুটি ট্রাকের ত্রিমুখী সংঘর্ষে দুজন নিহত ও তিনজন আহত হয়।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য