নান্দনিক নির্মাণশৈলী দিয়ে দৃষ্টি নন্দন ও সৌন্দর্য মন্ডিত বাংলাদেশের বৃহৎ দিনাজপুরের ঈদগাহ ঐতিহাসিক গোর এ শহীদ বড় ময়দানে ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হবে। এখানে এক সংগে ৫লাখ মুসল্লি নামাজ আদায় করতে পারবেন।

ইরাকের মসজিদে নব্বী, কুয়েত, ভারত ও ইন্দোনেশিয়াসহ বিভিন্ন দেশের স্থাপনার আদলে এই ঈদগাহ ময়দান সাজানো হচ্ছে।
আসন্ন ঈদুল ফিতরের নামাজ আদায়ের প্রস্তুতি চলছে। এ ঈদগাহ মাঠ হবে বাংলাদেশের অন্যতম ঐতিহ্যবাহী বৃহৎ ঈদগাহ মাঠ।

এর আগে দিনাজপুর ঐতিহাসিক গোর এ শহীদ বড় ময়দানে ছোট পরিসরে ঈদের নামাজ প্রতিবছরই আদায় করা হতো। সে ঈদগাহ সরিয়ে মাঠের পশ্চিমে নেওয়ার পর নির্মাণ করা হচ্ছে দৃষ্টি নন্দন ও সৌন্দর্য মন্ডিত ঈদগাহ মিনার। সৌন্দর্যবর্ধন ও সংস্কারের পর একসঙ্গে ৫লাখ মুসল্লি নামাজ আদায় করতে পারবেন সংশ্লিষ্টরা আশা করেন। এটি এখন বাংলাদেশে তথা দক্ষিন এশিয়ার সর্ববৃহত ঈদগাহ ময়দান।

জানা যায়, এই দৃষ্টি নন্দন ঈদগাহ মিনার এ রয়েছে ৫২টি গম্বুজ। প্রধান গম্বুজের সামনে রয়েছে মেহরাব, যেখানে ইমাম দাড়াবেন, তার উচ্চতা ৪৭ ফুট। এর পাশাপাশি রয়েছে ৫১টি গম্বুজ। এ ছাড়া ৫১৬ ফুট দৈর্ঘ্যরে ৩২টি আর্চ নির্মাণ করা হয়েছে। ঈদগাহ মাঠের দু ধারে করা হয়েছে অজুর ব্যবস্থা। পুরো মিনার সিরামিক্স ইট দিয়ে আচ্ছাদিত করা হয়েছে। প্রতিটি গম্বুজ ও মিনারে রয়েছে বৈদ্যুতিক লাইটিং। রাত হলেই ঈদগাহ মিনার আলোকিত হয়ে ওঠে।

দিনাজপুর সদর আসনের সংসদ সদস্য ও হুইপ ইকবালুর রহিমের পরিকল্পনা এবং জেলা পরিষদের অর্থায়নে এটির নির্মাণ কাজ প্রায় শেষের পথে।

জেলা পরিষদের উপ-সহকারী প্রকৌশলী জাকিউল আলম জানান, ইতিমধ্যে ২কোটি ৩২ লাখ টাকা ব্যয় হয়েছে। আরও ৩৫ লাখ টাকা ব্যয় মিনার নির্মাণে ব্যায় হয়েছে। মিনারের মাটি ভরাট ও সৌন্দর্যবর্ধনের কাজ শেষ পর্যায়ে।

এদিকে, দেশের বৃহৎ দিনাজপুরের ঐতিহাসিক গোর এ শহীদ বড় ময়দানে নান্দনিক ঈদগাহ মাঠে ঈদের নামাজ আদায়ের প্রস্তুতি চলছে বলে জানায় দিনাজপুর পৌর মেয়র সৈয়দ জাহাঙ্গীর আলম।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য