মোঃ আবেদ আলী, বীরগঞ্জ থেকেঃ বীরগঞ্জের ঝাড়বাড়ী উচ্চ বিদ্যালয় ও সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের আষাঢ়ের শুরুতে খেলার মাঠ পানিতে পরিপূর্ণ হয়ে গেছে- পানি নিষ্কাশন বন্ধ হয়ে গেছে।

উপজেলার শতগ্রাম ইউনিয়ের ঝাড়বাড়ী উচ্চ বিদ্যালয় ও সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ক্যাম্পাসে পানি নিষ্কাশনের জন্য উন্নত বা পরিকল্পিত ড্রেনেজ ব্যবস্থা না থাকার কারনে বুষ্টির পানি জমে জলাবদ্ধতা শুরু হয়েছে।

ঝাড়বাড়ী উচ্চ বিদ্যালয় ও সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহাশ্রাধিক কোমল মতি শিশু ছাত্রছাত্রীর আষাঢ়-শ্রাবন ২’মাস বিদ্যালয়ে এসে পাঠ গ্রহন করা কষ্টকর ব্যাপার হয়ে দাড়ায়। কোন কোন দিন বিদ্যালয়ের প্রবেশ পথে পড়ে গিয়ে জামা-কাপর (স্কুল ড্রেস) বই-পুস্তক ভিজিয়ে বিপাকে পড়ে তারা।

ভেজা কাপরে বিদ্যালয়ে পাঠদান করা হয় না আবার বাড়ীতে ফিরলেও অভিভাবকদের বকা-ঝকা খেতে হয় তাদের। অনেকে রৌদে দাড়িয়ে জামা-কাপর শুকিয়ে ক্লাসে প্রবেশ করে কেউ কেউ স্কুলের সময় পার করে বাড়ীতে ফিরে যায়।

ঝাড়বাড়ী উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক গোলাম মোস্তফা ও সভাপতি দলিলুর রহমান জানান, বিদ্যালয়ের আয় থেকে বিদ্যালয় ক্যাম্পাস থেকে পানি নিষ্কাশনের ড্রেন নির্মাণ করার কথা ভাবাই যায়না। নির্মান কতৃপক্ষের দ্বারে দ্বারে অনেক ঘুরেও সুফল হচ্ছে না।

অপরিকল্পিত ভাবে পানি নিষ্কাশন ড্রেন নির্মান কাজের বরাদ্দ দেওয়া হলেও তা যথা সময়ের মধ্যে নির্মান না করার কারনে বিদ্যালয়ের মাঠটি পানিতে পরিপূর্ণ হয়ে গেছে। আষাঢ়ের শুরুতেই রাতে ভারি বৃষ্টিপাত হওয়ার কারনে বিদ্যালয়ের পুরো মাঠ জুড়েই জলাবদ্ধতা হয়েছে।

এতে করে বিদ্যালয়ের মাঠের খেলাধুলার অনুপোযোগী হয়ে পরেছে। স্থানীয় বাসিন্দা ও ছাত্রছাত্রী অভিভাবকেরা জানান, সঠিক ভাবে ড্রেনেজ ব্যবস্থার নির্মাণ কাজ করা হলে পরবর্তীতে পানি নিষ্কাশন করা সহজে সম্ভব হতো।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য