ঠাকুরগাওয়ের হরিপুর উপজেলার ভাতুরিয়া ইউনিয়ন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কেন্দ্রের ৪টি সরকারী ভবন ও জায়গা বে-দখল হতে চলেছে। প্রশাসনের উদাসীনতার কারণে দীর্ঘদিন ধরে বে-দখল ভবনগুলো উদ্ধার না হওয়ায় ভবনগুলো এখন ভূষি ঘরে পরিণত হয়েছে। এতে দেখভাল করার কেউ নেই।

সরেজমিনের গিয়ে এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, উপজেলার ৬নং ভাতুরিয়া ইউনিয়নের বাসিন্দা আঃ সামাদ ও বিপ্লব নামে দুই ব্যক্তি ভাতুরিয়া ইউনিয়ন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কেন্দ্রের সরকারী ৪টি ভবন ও তমিগুলো দখল করে বিভিন্ন ধরণের খেড়-কুটা ও ভুট্টার ভূষি ভোরে রেখেছে। দেখে মনে হচ্ছে এটা একটি পরিত্যক্ত গরু-ছাগলের গোয়াল ঘর বা ভূষিঘর।

স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যান কেন্দ্রের দায়িত্বে থাকা স্বাস্থ্য সেবিকা নাসরিন জানান উপজেলার ৬নং ভাতুরিয়া ইউনিয়ন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যান কেন্দ্রে ভবনের ভিতরে ভুট্টা ও ভুট্টার খোষা এবং ভবনে সামনে ধান সিদ্ধ, ধান শুকানো, ভুটা ডেট রাখা, বিভিন্ন খড়কুটা ও গাছের খড়ি ও কাটা গাছ মজুত রেখে ব্যাবসা চালিয়ে যাচেছ আঃ সামাদ ও বিপ্লব।

উপ-সহকারী কমিউনিটি মেডিকেল অফিসার সোহেলকে জিজ্ঞাসা করা হলে তিনি জানান, তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য আমি একটি লিখিত অভিযোগ করেছি।

ইউনিয়ন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কেন্দ্রের সরকারী ভবনের ৪টি রুম ও ভবনের সামনে জায়গা বহিরাগতরা দখল করে বিভিন্ন খেড়কুটা রাখার বিষয়ে হরিপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কেন্দ্রের টিএইচ ডাঃ আঃ সামাদকে জিজ্ঞাসা করা হলে তিনি সত্যতা স্বীকার করে বলেন, এসব বস্তু সরানোর জন্য উপ-সহকারী কমিউনিটি মেডিকেল অফিসার সোহেল আমাকে একটি লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন। শীঘ্রই তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

সংশ্লিষ্ট ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান সাজাহান সরকার বলেন বিষয়টি আমার জানা ছিলো না। আজকে আপনার মাধ্যমে আমি অবগত হইলাম। বিষয়টি সরেজমিনে তদন্ত করে দখলদ্বারদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য