ভারত সরকারের ১৯৭৫ সালে জারি করা জরুরি অবস্থা নিয়ে নির্মিত হচ্ছে ‘ইন্দু সরকার’। ইন্দিরা গান্ধীর সময়কালের এ বিশেষ রাজনৈতিক পরিস্থিতি নিয়ে এর আগে খুব বেশি কাজ হয়নি ভারতে। মধুর ভান্ডারকরের এ সিনেমার ট্রেইলার বলছে দর্শককে নতুন কিছু উপহার দিতে চলেছেন তিনি।

১৯৭৫ থেকে ১৯৭৭ এ সময়কালকে ভারতের রাজনৈতিক ইতিহাসের এক কালো অধ্যায় হিসেবে অভিহিত করা হয়ে থাকে। এ সময় তৎকালীন ভারতের প্রধানমন্ত্রী ইন্দিরা গান্ধী ও তার পরিবারের ভূমিকা নিয়ে পরবর্তীতে নানা প্রশ্ন ওঠে। প্রশ্নবিদ্ধ ও বিতর্কিত এ অধ্যায়কে নিয়ে এবারে সিনেমা বানাতে চলেছেন পরিচালক মধুর ভান্ডারকর।

ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস বলছে, সম্প্রতি ‘ইন্দু সরকার’য়ের অভিনেতা-অভিনেত্রীদের তালিকা প্রকাশ করা হয়েছে। এতে ইন্দিরা গান্ধীর চরিত্রে অভিনয় করছেন সুপ্রিয়া বিনোদ। তার ছেলে সঞ্জয় গান্ধীর ভূমিকায় নীল নিতিন মুকেশ, এক বামপন্থী নেতার চরিত্রে অনুপম খের এবং বামপন্থী চেতনায় উদ্বুদ্ধ এক বিদ্রোহী নারী চরিত্রে দেখা যাবে কীর্তি কুলহারিকে।

ট্রেইলারে শক্তিশালী ভূমিকায় ‘পিঙ্ক’ তারকা কীর্তিকে দেখে চমকে যাবেন সবাই। পুলিশি নির্যাতনের মুখে কীর্তির সাহসী মন্তব্য “অর্জুনের জন্য সব করতে পারি কিন্তু আহত দ্রৌপদীর জন্য নয়”- এটিই সম্ভবত এ ছবির সবচেয়ে শক্তিশালী সংলাপ। এছাড়া সঞ্জয় গান্ধীর মুখে “জরুরি অবস্থায় আবেগ নয়, আমার হুকুম মতো চলতে হবে” সংলাপটিও বেশ নাড়া দেবে দর্শককে। টেইলারে বলা হয়েছে সত্যি ঘটনা থেকে অনুপ্রাণিত হয়ে নির্মাণ করা হয়েছে এ ছবিটি। তাই ১৯৭৫ সালের জরুরি অবস্থার অজানা কিছু অধ্যায় দর্শকের সামনে তুলে ধরবে ‘ইন্দু সরকার’- এমনটাই আশা করছে সবাই।

‘ইন্দু সরকার’-এর সুর ও সংগীতের কাজ করছেন অনু মালিক ও বাপ্পি লাহিড়ি। প্রথমবারের মতো সিনেমায় একসঙ্গে কাজ করছেন তারা। ২৮ জুলাই মুক্তি পেতে চলেছে ছবিটি।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য