দেলোয়ার হোসেন বাদশা, চিরিরবন্দর থেকেঃ দিনাজপুরের চিরিরবন্দর রাণীরবন্দর খাদ্য গুদাম হতে ২৫ বস্তা পাচার হওয়া চাল আটক করেছে স্থানীয় জনগণ। ঘটনাটি ঘটেছে গত ১৩ জুন মঙ্গলবার গুদামের মেইন গেটে। জানা গেছে, খাদ্য গুদাম হতে চাল পাচার হচ্ছে এমন তথ্য পেয়ে দুপুরে ওই এলাকার গোলাম রব্বানী স্থানীয় লোকজন নিয়ে গুদামের গেটে ওঁৎ পেতে থাকেন।

এসময় লেবার সর্দার জুয়েল দুটি ভ্যানে করে ২৫ বস্তা চাল নিয়ে বের হওয়ার সময় উপস্থিত লোকজন ভ্যান দুটি আটক করলে জুয়েল সটকে পড়ে। রাণীরবন্দর খাদ্য গুদামের উপ-সহকারী খাদ্য পরিদর্শক হাফিজুল ইসলাম ও নিরাপত্তা প্রহরী নুরুল ইসলাম জুয়েলের কাছে আটক হওয়া চাল বিক্রি করেছেন বলে জানা গেছে। ওই এলাকার গোলাম রব্বানী জানান, রাণীরবন্দর খাদ্য গুদাম এখন দুর্নীতির আখড়ায় পরিণত হয়েছে।

সরকারী ধান-চাল-গম ক্রয়ে ব্যাপক অনিয়ম-দুর্নীতি হচ্ছে। টাকার বিনিময়ে প্রকৃত চাষীকে বাদ দিয়ে মৌসুমী ব্যবসায়ী, দলীয় নেতা-কর্মী বা চাকুরীজীবিদের কাছ থেকে এসব সংগ্রহ করা হচ্ছে। তাছাড়া লেবার সর্দার জুয়েল, উপ-সহকারী খাদ্য কর্মকর্তা হাফিজুল ও নিরাপত্তা প্রহরী নুরুল ইসলাম একটি সিন্ডিকেট গড়ে তুলে আঙ্গুল ফুলে কলাগাছ বনে গেছেন। নাম প্রকাশ না করার শর্তে একজন মিল মালিক জানান, এখানে যে সিন্ডিকেটটি রয়েছে তারা চাল পাচার ছাড়াও সরকারী ভাল মানের চাল সরিয়ে নিম্নমানের চাল মজুত রাখেন।

এমনকি ওই চক্রটি গুদামে রাখা চাল-গমের বস্তায় পাইপিং করে চাল-গম বের করে নেন। খাদ্য গুদামের উপ-সহকারী খাদ্য কর্মকর্তা হাফিজুল ইসলামের কাছে জানতে চাইলে তিনি বিষয়টি অস্বীকার করেন। নিরাপত্তা প্রহরী নুরুল ইসলাম জানান, পত্রিকায় লিখে কি হবে? এসব নিয়ে লেখালেখি না করাই ভাল হয়। চাল পাচারের বিষয়ে জানতে চাইলে লেবার সর্দার জুয়েল ১৩ বস্তা চালের কথা স্বীকার করেন।

এসব চাল কিভাবে পেলেন? জানতে চাইলে তিনি কোন কাগজ-পত্র দেখাতে পারেননি বা কোন সদুত্তর দিতে পারেননি। এদিকে চাল পাচারের বিষয়ে খাদ্য গুদাম কর্মকর্তা আব্দুর রশিদের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, আমি এখানে যোগদান করার বেশিদিন হয়নি। তাই বিষয়টি এই মুহুর্তে বলতে পারছি না। তবে প্রমাণিত হলে শাস্তিযোগ্য ব্যবস্থা নিব। চিরিরবন্দর উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক আবু হেনা মোস্তফা কামালের সাথে মুঠোফোনে কথা হলে তিনি জানান, খাদ্য গুদামে চালের মজুদ সঠিক আছে কিনা আমি যাচাই করে দেখবো। চাল পাচারের বিষয়টি প্রমাণিত হলে জড়িতদের বিরুদ্ধে অবশ্যই ব্যবস্থা নেয়া হবে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য