ইরাকের যুদ্ধকবলিত শহর মসুলের দক্ষিণে সুন্নি অধ্যুষিত শহর শিরকাতে ইসলামিক স্টেটের (আইএস) একটি হামলা প্রতিহত করেছে ইরাকি বাহিনী।

শনিবার ভোররাতে চালানো এ হামলা প্রতিরোধের লড়াইয়ে ইরাকি সামরিক বাহিনীর সদস্য ও বেসামরিকসহ ৩৮ জন ও আইএসের ২৪ যোদ্ধা নিহত হয়।

শিরকাতের এ লড়াইয়ে আরো অন্তত ৪০ জন আহত হয়েছে বলে জানিয়েছে ইরাকি নিরাপত্তা বাহিনীর সূত্রগুলো। ভোররাতে শুরু হওয়া এ লড়াই শনিবার দুপরে শেষ হয় বলে জানিয়েছেন তারা।

শহরটিতে নিহত ৩৮ জনের মধ্যে প্রায় অর্ধেকই বেসামরিক আর বাকীরা ইরাকি সশস্ত্র বাহিনী ও স্থানীয় সুন্নি বেসামরিক বাহিনীর সদস্য।

লড়াই থামার পর ইরাকের রাজধানী বাগদাদ ও দ্বিতীয় বৃহত্তম শহর মসুলের মাঝে অবস্থিত শিরকাতে সান্ধ্য আইন জারি করেছে কর্তৃপক্ষ।

গত বছর আইএসের কবল থেকে শিরকাত পুনরুদ্ধার করে যুক্তরাষ্ট্রের সমর্থিত ইরাকি বাহিনী ও স্থানীয় বেসামরিক সুন্নি বাহিনীর জোট। শিরকাত পুনরুদ্ধারের পরই সরকারি বাহিনীর সামনে মসুল অভিযানের পথ খুলে যায়।

গত আট মাস ধরে ইরাকে আইএসের তথাকথিত রাজধানী বলে পরিচিত মসুলে অভিযান চালাচ্ছে ইরাকি বাহিনী। এই সময়ে তারা তাইগ্রিস নদীর পশ্চিম পাড়ে শহরটির পুরনো অংশের আইএস-নিয়ন্ত্রিত ছোট একটি এলাকা ছাড়া অধিকাংশ এলাকা পুনরুদ্ধার করেছে।

তবে শহরটির দক্ষিণে ও পশ্চিমের বেশ কিছু বিক্ষিপ্ত এলাকা এখনও জঙ্গিগোষ্ঠীটির নিয়ন্ত্রণে রয়ে গেছে। আরো দক্ষিণ-পশ্চিমে সিরিয়ার সীমান্ত সংলগ্ন এলাকা ও সিরিয়ার ভিতরের বিশাল অংশেও জঙ্গিগোষ্ঠীটির দখল বজায় আছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য