রাশিয়া মস্কোয় মার্কিন কূটনৈতিক সম্পত্তি জব্দ করার পরিকল্পনা করেছে। এ ছাড়া, অ্যাংলো-আমেরিকান স্কুলের আইনি মর্যাদাও পরিবর্তন করবে। গত বছর আমেরিকায় জব্দ করা রাশিয়ার কূটনৈতিক চত্বর ওয়াশিংটন ফেরত না দিলে এ সব ব্যবস্থা মস্কো নেবে বলে খবর দিয়েছে রুশ দৈনিক কোমেরসান্ত।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কূটনৈতিক সূত্রের বরাত দিয়ে এ খবর দিয়েছে দৈনিকটি। এতে বলা হয়েছে, রাশিয়ার দু’টি ভবন ফেরৎ দেয়ার জন্য ওয়াশিংটনের কাছে দাবি জানিয়েছে মস্কো। জার্মানিকে আগামী মাসে জি২০ শীর্ষ সম্মেলনের অবকাশে রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন এবং মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের মধ্যে সম্ভাব্য বৈঠকের আগে এ দাবি জানানো হলো।

এতে বলা হয়েছে, মস্কোর উত্তরপশ্চিমাঞ্চলীয় উপকণ্ঠে মার্কিন কূটনৈতিক ভবন এবং মস্কোর মার্কিন কূটনৈতিক গুদাম জব্দ করতে পারে রাশিয়া।

এ ছাড়া, মস্কোর আইনি মর্যাদা পরিবর্তন করে অ্যাংলো-আমেরিকান স্কুলের জীবন জটিল করেও তুলতে পারে রাশিয়া। অবশ্য এ কথার মানে কি তার ব্যাখ্যা দেয়া হয়নি।

গত বছরের ডিসেম্বর মাসে মেরিল্যান্ড এবং নিউ ইয়র্কে রাশিয়ার দু’টি চত্বর জব্দ করেছিল মার্কিন সাবেক প্রশাসন। ২০১৬ সালের মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে সাইবার হামলায় মস্কোর জড়িত থাকার অভিযোগে এ পদক্ষেপ নেয়া হয়েছিল। পাশাপাশি একই অভিযোগে রুশ ৩৫ কূটনীতিবিদকে বের করে দেয়ার নির্দেশও দিয়েছিলেন সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা।

অবশ্য রাশিয়া এ অভিযোগ জোরালো ভাবে অস্বীকার করেছিল। তা ছাড়া, আমেরিকার বিরুদ্ধে পাল্টা কোনো ব্যবস্থাও নেয় নি মস্কো। মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ট ট্রাম্পের আমলে ওয়াশিংটন-মস্কো সম্পর্ক ভাল হবে প্রত্যাশা করেছিল রাশিয়া। নির্বাচনি প্রচারকালে এ সম্পর্ক উন্নয়নের প্রতিশ্রুতিও ব্যক্ত করেছিলেন ট্রাম্প।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য