জাপানে হত্যা মামলায় গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারির ৪৬ বছর পর এক ব্যক্তিকে আটক করেছে পুলিশ।

গ্রেপ্তার মাসাকি ওসাকার বর্তমান বয়স ৬৭ বছর। বুধবার পুলিশ তাকে অভিযুক্ত করে সম্পূরক অভিযোগপত্র দাখিল করেছে।

এক পুলিশকে হত্যার অভিযোগে ১৯৭১ সালে তার বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি হয়েছিল। ওই সময় তার বয়স ছিল ২১ বছর।

মাসাকি জাপানের বিপ্লবী কমিনিস্ট লীগের সাবেক শীর্ষনেতা।

ঘটনার বর্ণনায় পুলিশ জানায়, ১৯৭১ সালের ১৪ নভেম্বর রাজধানী টোকিওতে যুক্তরাষ্ট্রের সেনা মোতায়েন এবং ওকিনেয়ায় মার্কিন সেনাঘাঁটি নির্মাণের প্রতিবাদে বিক্ষোভ হয়। বিপ্লবী কমিনিস্ট লীগের ছাত্র সংগঠনের কর্মীরাও ওই বিক্ষোভে অংশ নেয়। বিক্ষোভের এক পর্যায়ে ছাত্রদের ছোড়া পেট্রোল বোমার সুনেও নাকামুরা (২১) নামের এক পুলিশ সদস্য নিহত হয়।

এ ঘটনায় ১৯৭২ সালে পুলিশ মামলা করে। মামলার অভিযোগপত্রে মাসাকিকে আসামী করা হয় এবং তার বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি হয়।

ওই সময় আত্মগোপনে চলে যান মাসাকি। পুলিশ তাকে ধরতে বিশেষ পুরস্কারও ঘোষণা করেছিল।

জাপানের আইনে কোন  মামলার অভিযোগপত্র দায়েরের ১৫ বছরের মধ্যে বিচার শেষ করার প্রচলন ছিল।

ওই সময় উপযুক্ত তথ্যের অভাব ও আইনি জটিলতা থাকার কারণে পুলিশ মাসাকিকে গ্রেপ্তার করতে পারিনি। আশির দশকের শেষ দিকে মাসাকি একটি রাজনৈতিক দলে যোগ দেন।

২০১০ সালে সংশোধনীর মাধ্যমে ১৫ বছরের আইনটি বাতিল হয়। তারপর নতুন করে মাসাকিকে গ্রেপ্তারের তৎপরতা শুরু হয়।

পুলিশ জানায়, গতবছর ১৮ নভেম্বর মাসাকিকে হিরোশিমার এক বাড়ি থেকে আটক করা হয়।

পরে তার ডিএনএ ও ফিঙ্গারপ্রিন্টের সাথে নিহত পুলিশ সদস্যের কাছ থেকে সংগ্রহীত আলামতে মিল পাওয়া গেলে পুলিশ সম্পূরক অভিযোগপত্র দায়ের করে এবং সেখানে মাসাকিকে ৪৬ বছর আগের ওই হত্যাকাণ্ডে গ্রেপ্তার দেখানো হয়।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য