মোটরযান অধ্যাদেশ আইন ২০১৭ বাতিলের দাবিতে কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে গতকাল সৈয়দপুর কেন্দ্রীয় বাস টার্মিনালে পরিবহন মালিক শ্রমিকদের পক্ষ থেকে বিক্ষোভ মিছিল বের করা হয়। মিছিল শেষে অনুষ্ঠিত হয় কেন্দ্রীয় বাসটার্মিনাল মোড়ে এক সভা। ওই সভায় বক্তব্য বলেন, নীলফামালী জেলা বাস মিনিবাস শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক ও বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশন রংপুর বিভাগীয় কমিটির প্রচার সম্পাদক মো. আলতাফ হোসেন, নীলফামারী জেলা বাস মিনিবাস শ্রমিক ইউনিয়নের সাংগঠনি সম্পাদক ও বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশন রংপুর বিভাগীয় কমিটির আইন বিষয়ক সম্পাদক মো. মমতাজ আলী, নীলফামারী জেলা মাইক্রোবাস জীপকার, পিকআপ উপকমিটির সম্পাদক মো. মানিক মিয়াসহ অনেকে।

এ সময় বক্তারা বলেন, বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন মালিক ও শ্রমিকেরা কোন বিশেষ রাজনৈতিক দলের লেজুরবৃত্তি করে না। কোন দলীয় সরকারকে ক্ষমতা থেকে নামানো আবার কাউকে ক্ষমতায় বসানোর নীতিতেও বিশ্বাসী নয়। জাতীয় স্বার্থকে সমুন্নত রেখে সড়ক পরিবহন মালিক ও শ্রমিক স্বার্থ সমন্বয় করে পথ চলার নীতিতে বিশ্বাসী। আমাদের ওই পথচলাকে একটা বিশেষ গোষ্ঠি সহজভাবে মেনে নিতে না পেরে সরকারকে বিভ্রান্ত করে আমাদের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রে মেতে উঠেছে। নামধারী শ্রমিক লীগ ইনসুর আলী গং মোটর মালিক ও শ্রমিকদের বিরুদ্ধে কেন যেন উঠে পড়ে লেগেছে। আমরা ওই নামধারী শ্রমিক লীগ গং ইনসুর আলীকে জানিয়ে দিতে চাই যখন সরকারের দুঃসময় এসেছিল তখন আমাদের শ্রমিকরা জীবন বাজি রেখে রাস্তায় গাড়ি চালিয়েছে। দুর্বৃত্তদের বোমার আঘাতে শতাধিক শ্রমিক নিহত হয়েছে।

সারাদেশে হাজার হাজার শ্রমিক অঙ্গ হারিয়ে পঙ্গু হয়ে দিন যাপন করছে। তখন ইনসুর আলী গং কোথায় ছিলেন। আজ আমাদের বিরুদ্ধে একটি কালো আইন পাশ হতে যাচ্ছে। ওই আইন পাশ হলে কোন শ্রমিক গাড়ী চালাবে না। কারণ যানবাহন চলাচল করলে দুর্ঘটনা ঘটবেই এটা স্বাভাবিক। কিন্তু গাড়ী চালাতে গিয়ে দুর্ঘটনার কবলে পড়লে যদি ফাঁসি হয়, যাবজ্জীবন কারাদন্ড হয় তাহলে কোন মানুষ এ পেশায় আগামীতে আসবে না। তাই আমরা ইতিপূর্বে জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী বরাবর স্মারকলিপি প্রদান করেছি। আমাদের দাবি তিনি যেন অত্যন্ত গুরুত্ব সহকারে শ্রমিকদের বিষয়গুলো দেখে কালো আইনগুলো বাতিলের ব্যবস্থা নেন এ আশা রাখি। সভা পরিচালনা করেন নীলফামারী জেলা বাস মিনিবাস শ্রমিক ইউনিয়নের সমাজ কল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক মো. আব্দুস সামাদ।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য