আজিজুল ইসলাম বারী,লালমনিরহাট থেকে:লালমনিরহাট-বুড়িমারী স্থলবন্দর জাতীয় মহাসড়ক দিয়ে অতিরিক্ত পণ্যবাহী ট্রাক চলাচল বন্ধের কড়াকড়ি উদ্যোগ নিয়ছেন লালমনিরহাট জেলা প্রশাসন। এ উপলক্ষে গত মঙ্গলবার (৬ জুন) দুপুরের দিকে লালমনিরহাট জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে জরুরি বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। বৈঠকে সবার সিদ্ধান্ত অনুযায়ী পণ্যবাহী ট্রাকসহ মোট ২২ মেট্রিকটনের চেয়ে বেশি ওজনের যানবাহন এ রুটে চলাচল করতে পারবে না।লালমনিরহাট অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) রেজাউল আলম সরকার জানান, জেলা প্রশাসক আবুল ফয়েজ মো. আলাউদ্দিন খানের সভাপতিত্বে জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট মতিয়ার রহমান, পুলিশ সুপার এসএম রশিদুল হক, লালমনিরহাট সড়ক ও জনপথ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী সাজেদুর রহমান, লালমনিরহাট এলজিইডির নির্বাহী প্রকৌশলী এসএম জাকিউর রহমান, বুড়িমারী স্থলবন্দর সিঅ্যান্ডএফ এজেন্ট ও আমদানি-রফতানিকারক সমিতির আহ্বায়ক উপজেলা চেয়ারম্যান রুহুল আমীন বাবুল, লারমনিরহাট জেলা ট্রাক-ট্রাংক লড়ি সমিতির নেতা সিরাজুল হক, শ্রমিকলীগের আবুল কালাম আজাদ, আমিরুল ইসলামসহ অন্যান্যদের উপস্থিতিতে ‘ক্ষতিগ্রস্ত স্বর্ণামতি বেইলি সেতু গাড়ি চলাচল’ সংক্রান্ত এক সভা অনুষ্ঠিত হয়।সভায় জানানো হয়, বড়বাড়ী-লালমনিরহাট-বুড়িমারী মহাসড়কটি বুড়িমারী স্থলবন্দর তথা সারাদেশের সঙ্গে অন্যান্য অংশে চলাচলের একমাত্র সড়ক। মহাসড়কটির বড়বাড়ী-মহেন্দ্রনগর অংশে মেরামতের কাজ চলমান রয়েছে। ফলে মোস্তফীরহাট-মহেন্দ্রনগর অংশ দিয়ে গাড়ি চলাচল করছে। এ মহাসড়কের ২০ কিলোমিটর দূরে আদিতমারী উপজেলার স্বর্ণামতি সেতুর নির্মাণ কাজ চলমান রয়েছে। সেতু নির্মাণকাজ চলাকালীন সময়ে বেইলি সেতু দিয়ে সব প্রকার যানবাহন চলাচল করছে। কিন্তু অতিরিক্ত ভারি ওজন নিয়ে ট্রাক চলাচলের কারণে বেইলি সেতু ক্ষতির মুখে পড়ছে।

নির্মণাধীন স্বর্ণামতি সেতুর নির্মাণ কাজ শেষ না হওয়া পর্যন্ত সারাদেশের সঙ্গে সড়ক যোগাযোগের গতিধারা স্বাভাবিক রাখার জন্য ট্রাকসহ ২২ মেট্রিকটন ওজনের বেশি পণ্যবাহী গাড়ি চলাচল নিয়ন্ত্রণে কড়াকড়ি আরোপ করা প্রয়োজন।এ ব্যাপারে জানতে চাইলে লালমনিরহাট সড়ক ও জনপথ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী সাজেদুর রহমান বলেন, ‘নির্মাণাধীন স্বর্ণামতি সেতুর কাজ প্রায় ৮০ ভাগ শেষ হয়েছে। ইতোমধ্যে বর্ষা মৌসুম শুরু হয়েছে। অতিরিক্ত ওজনের ট্রাক চলাচলের কারণে বিকল্প বেইলি সেতুর নাট-বোল্ট কেটে পড়ে যাচ্ছে। যেকোনও মুহূর্তে বেইলি সেতু ভেঙে সারাদেশের সঙ্গে লালমনিরহাট জেলার যোগাযোগ ব্যবস্থা বিচ্ছিন্ন হতে পারে। যেহেতু এটি একমাত্র যোগাযোগের উপায় সেহেতু জনসাধারণের চলাচল স্বাভাবিক রাখতে ও যেকোনও ধরনের দুর্ঘটনা এড়াতে ট্রাকের ওজনসহ ২২ মেট্রিকটনের বেশি পণ্য বোঝাই ট্রাক চলাচল বন্ধের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।’

তিনি আরও বলেন, ‘জুলাই মাসের মধ্যে স্বর্ণামতির নির্মাণ কাজ শেষে সাধারণের চলাচলের জন্য খুলে দেওয়া হলে এই বিধিনিষেধ তখন থাকবে না।’ লালমনিরহাট জেলা প্রশাসক আবুল ফয়েজ মো. আলাউদ্দিন খান বলেন, সভায় উপস্থিত সবার মতামতের ভিত্তিতে ৩টি গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। স্বর্ণামতি বেইলি সেতুর ওপর দিয়ে কোনওক্রমেই ২২ মেট্রিকটন ওজনের বেশি ভারি যানবাহন না চালানোর জন্য লালমনিরহাট ট্রাক মালিক সমিতিকে জরুরি ভিত্তিতে মাইকিং করতে অনুরোধ করা হয়। ঈদ পর্যন্ত বুড়িমারী ট্রাক স্ট্যান্ডের সামনে চেকপোস্ট বসানোর জন্য পুলিশ সুপার, সড়ক ও জনপথ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী এবং পাটগ্রাম উপজেলা চেয়ারম্যান রুহুল আমীন বাবুলকেও সর্বাত্মক সহযোগিতা করার অনুরোধ করা হয়।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য