আরিফ উদ্দিন, গাইবান্ধা থেকেঃ গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জ উপজেলার পশ্চিম ছাপড়হাটী গ্রামে ভাতিজার হাতে চাচা খুন হয়েছে। ছাগলে গাছের চারা খাওয়াকে কেন্দ্র করে মঙ্গলবার দুপুরে এ ঘটনা ঘটে। এতে আরও ৩ জন গুরুতর আহত হয়েছে।

থানা ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, পশ্চিম ছাপড়হাটী গ্রামের হাজী শফিউল ইসলামের ছেলে নজরুল ইসলামের একটি ছাগল হাফিজার রহমানের ছেলে চাচাত ভাই জাহাঙ্গীর আলমের একটি আম গাছের চারা খেয়ে ফেলে। এ নিয়ে  জাহাঙ্গীর আলমের ছেলে সোহেল রানা ছাগলটির একটি পা ভেঙ্গে দেয়। নজরুল ইসলাম ছাগলের পা ভাঙ্গার বিষয়ে জাহাঙ্গীর আলমের নিকট প্রতিবাদ করতে গেলে উভয়ের মধ্যে বাক্বিতন্ডা বাধে।

বাক্বিতন্ডা একপর্যায়ে সংঘর্ষে রুপ নেয়। এতে প্রতিপক্ষের উপর্যুপরি ধারালো ছুরিকাঘাতে নজরুল ইসলাম গুরুতর আহত হয়। আহত নজরুলকে (৫০) স্থানীয় জনতা উদ্ধার করে দ্রুত সুন্দরগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত্যু ঘোষণা করেন। নজরুলকে উদ্ধার করতে গিয়ে তার বাবা শফিউল ইসলাম, ভাই মোস্তাফিজুর রহমান, জুয়েল মিয়াও ছুরিকাঘাতে গুরুতর আহত হয়।

আহতদের সুন্দরগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি  করা হয়েছে। নিহত নজরুলের বাবা হাজী শফিউল ইসলাম জানান দীর্ঘদিন থেকে সন্ত্রাসী সোহেল রানা আমার ৩ ছেলেকে হত্যা করার জন্য হুমকি দিয়ে আসছিল। অবশেষে আজ পবিত্র রমজান মাসে ছাগলে সামান্য গাছের চারা খাওয়াকে কেন্দ্র করে প্রকাশ্যে ছুরি দিয়ে এলোপাথারি আঘাত করে আমার বড় ছেলেকে খুন করল।

থানার ওসি আতিয়ার রহমান জানান ঘটনাস্থলে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের জন্য পুলিশ পাঠানো হয়েছে। মামলার প্রস্তুতি চলছে। ঘটনার সাথে জড়িতদের গ্রেফতারের চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য