চীনে নিযুক্ত যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূত ডেভিড র্যাঙ্ক পদত্যাগ করেছেন। প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের জলবায়ু নীতির সঙ্গে মত পার্থক্যই এর কারণ বলে ধারণা করা হচ্ছে। যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে র্যাঙ্কের পদত্যাগের বিষয়টি নিশ্চিত করা হয়েছে।

মন্ত্রণালয়ের একজন মুখপাত্র বলেন, তিনি তার বৈদেশিক দায়িত্ব থেকে অবসর নিয়েছেন। এটা ডেভিড র্যাঙ্কের ব্যক্তিগত সিদ্ধান্ত। আমরা গত কয়েক বছর ধরে পররাষ্ট্র দপ্তরে তার অক্লান্ত পরিশ্রমের তারিফ করছি। র্যাঙ্কের জায়গায় আইওয়ার গভর্নর টেরি ব্রানস্টাডকে নিয়োগ দিয়েছেন ট্রাম্প। এ মাসের শেষ দিকে তিনি বেইজিং যেতে পারেন। গত ১ জুন প্যারিস জলবায়ু চুক্তি থেকে যুক্তরাষ্ট্রকে  সরিয়ে নেওয়ার আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দেন ট্রাম্প।

প্যারিস জলবায়ু চুক্তিকে ‘অন্যায্য’ আখ্যায়িত করে ট্রাম্প এর বদলে নতুন একটি ‘ন্যায্য’ চুক্তির জন্য দর-কষাকষি চালানোর কথাও বলেন, যা যুক্তরাষ্ট্রের ব্যবসায়ী ও কর্মীদের ক্ষতির কারণ হবে না।

প্যারিস চুক্তির কারণে যুক্তরাষ্ট্রের জিডিপির ৩ ট্রিলিয়ন ডলার এবং ৬৫ লাখ চাকরি হাতছাড়া হচ্ছে বলেও দাবি করেন তিনি। এসব কারণে অর্থনৈতিকভাবে দেশটির প্রতিদ্বন্দ্বী চীন ও ভারত লাভবান হচ্ছে বলেও মন্তব্য তার।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য