মাসুদ রানা পলক, ঠাকুরগাঁও থেকেঃ ঠাকুরগাঁওয়ের রানীশংকৈল উপজেলায় রমজান শুরুর দিন থেকেই কিছু সময় বিদ্যুৎ আসে আবার চলে যায়। প্রায় প্রতিদিনেই ঠিক একই অবস্থ্যা চলছে বিপাকে পড়তে হচ্ছে বয়বৃদ্ধ ও রোজাদারদের। সারাদিন রোজা রেখে একটু শান্তি মত ইফতার করবেন সেটাও পারেন না, বিদ্যুৎ থাকছে না।

কয়েক দিন যাবৎ বিদ্যুৎ সারাদিনে ২ঘন্টায়ও ঠিক মত থাকছে না এমনটিই বল্লেন পৌর শহরের বাসিন্দা ও যুবলীগ নেতা সোহেল রানা মাসুম। তিনি আরও বলেন শুধু যে ইফতারের সময় বিদ্যুৎ থাকেনা তা নয় তারাবির নামাজের সময় হলেই বিদ্যুৎ চলে যায় আর বিদ্যুৎ আসে নামাজ শেষ করে। একটি মুশলিম শহরের যদি এমটি হয় তাহলে আর কিভাবার থাকতে পারে বলেন । রাত ১০ টায় বিদ্যুৎ আসলে ২ ঘন্টা যেতে না যেতেই আবার চলে যায়। তার ব্যাতিক্রম ঘটছেনা ভোর রাতে শেহেরির সময়ও যখন মানুষ জন রোজা রাখার জন্য ভোর রাতে শেহেরি খেতে উঠছেন ঠিক সেই সময়ে বিদ্যুৎ চলে যায়।

সারাদিন সারাদিন বিদ্যুৎ না থাকায় জনমনে বিভ্রান্তি সৃষ্ঠি হয়েছে। অনেকের মোবাইল ফোন বন্ধ হয়ে যাচ্ছে, টিভি, ফ্রিজ, কম্পিউটার, বাতি জালাতে পারছেনা।

এদিকে প্রায় প্রতিদিন ২৪ ঘন্টার মধ্যে ১২ ঘন্টা বিদ্যুৎ না থাকায় গ্রাহক ও যুবনেতা  জাহাঙ্গীর আলম বাবু ক্ষোভ প্রকাশ করে সাংবাদিকদের বলেন, বিদ্যুৎ বিভাগ শুধু গ্রাহক তৈরি করতে পারচ্ছেন কিন্তু সেবা দিতে পারছেন না। গরমে ঠিক মত বিদ্যূৎ না থাকায় রোগে আক্রান্ত হচ্ছে বিভিন্ন বয়সের মানুষজন ও রোজাদাররা,

সারাদিন বিদ্যুৎ না পাওয়ায় প্রসঙ্গে এজিএম কম জুবায়েদ রহমানের (ভারপ্রাপ্ত) মুঠোফোনে কথা বলতে চাইলে তিনাকে ফোনে পাওয়া যায়নি।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য