মোঃ রজব আলী ফুলবাড়ী থেকেঃ দিনাজপুরের ফুলবাড়ীতে রমজান মাসেও বিদুৎ এর অসহনিয় লোড শেডিং শুরু হয়েছে, এতে চরম দুর্ভোগের শিকার হয়েছে রোজাদারসহ সাধারন মানুষ। রোজাদারেরা বলছেন ইফতার তারাবিহ ও সেহরীর সময়ও বিদুতের লোড শেডিং হচ্ছে যা ইতিপূর্বে কখনো এই রকম লোড শেডিং এর শিকার হতে হয়নি। রমজান মাসে নিরবিছিন্ন বিদুৎ সরবরাহ থাকার সরকারী ঘোষনা দেয়ার পরেও, এই অসহনিয় লোড শেডিং শুরু হওয়ায় ক্ষোব বিরাজ করছে সাধারন মানেুষের মাঝে।

ফুলবাড়ী পৌর শহরের প্রানকেন্দ্র নিমতলা মোড় এলাকার বাসীন্দা সামিউল চৌধুরী বলেন বৃহস্পতিবার ইফতারের সময় সন্ধা ছয়টা থেকে সাতটা পর্যন্ত এক ঘন্টার ব্যবধানে চার বার লোডশেডিং হয়েছে,একই কথা বলেন সিপিবি এর সাধারন সম্পাদক এসএস নুরুজ্জামান ও স্থানী ব্যবসায়ীগণ। নিমতলা জামে মসজিদের মুসুল্লি ডাক্তার ওয়াজেদুর রহমান বলেন, মঙ্গলবার তারাবিহর নামাজের সময় কয়েক দফা লোডশেডিং হয়েছে, অধিকাংশ নামাজ অন্ধকারে  আদায় করতে হয়েছে, একই কথা বলেন অন্য মুনুল্লি সাবেক বনকর্মকর্তা আব্দুল গফুর মন্ডল। বাস ষ্ট্যান্ডের হোটেল ব্যবসায়ী দুলু মিয়া বলেন, সুধু গত মঙ্গলবার নয়, গত এক মাস থেকে চলছে অসহনিয় বিদুৎ এর লোড শেডিং, কিন্তু রমজান শুরু হওয়ায় ইফতার তারাবিহ ও সিহেরীর সময় বিদুৎ এর লোড শেডিং সাধারন মানুষের নজরে আসছে। কাটাবাড়ী গ্রামের বাসীন্দা সংবাদকর্মি মেহেদী হ্ছান উজ্জল বলেন, আকাশে মেঘ জমা দেখলে এখন বিদুৎ চলে যায়। মানুষ আগে ভাবতো কখন বিদুৎ যাবে, আর এখন ভাবে কখন বিদুৎ আসবে।

জানাযায় কতিপয় অসাধু কর্মকর্তা-কর্মচারী বিদুৎ বিতরন  বিধিমালাকে বৃদ্ধাঙ্গুলী দেখিয়ে, পৌরশহরের প্রায় ১৫ থেকে ২০ কিলোমিটার দুরুত্বে ঝুঁকিপুর্ন অবস্থায় বাশেঁর খুটি দিয়ে গ্রামের পর গ্রাম বিদুৎ সংযোগ দিয়েছে, যা সামান্য বৃষ্টিপাতের কারনে বিদুতের তারে অগ্নিসংযোগসহ নানা সম্যসা দেখা দেয়। এজন্য তারা সামান্য বৃষ্টিপাত হলেই বিদুৎ সংযোগ বন্ধ করে দেয়। শুধু তাই নয়, এই সকল অবৈধ বিদুৎ সংযোগ স্থাপন করতে পৌর এলাকার গত ২০০৮ সালে স্থাপীত ষোলশহর প্রকল্পের বিদুৎএর তার খুটি খুলে নিয়ে গিয়ে, সারা পৌর এলাকার বিদুৎ সরবরাহ ব্যবস্থাকে করে ফেলেছে ঝুঁকিপুর্ন।

সরজমিনে দেখা যায় পৌর শহরের ঢাকা মোড় থেকে বারকোনা মোড় পর্যন্ত, দিনাজপুর-গবিন্দগঞ্জ মহাসড়কের পার্শের স্থাপীত বিদুৎ সংযোগ প্রায় চার কিলোমিটার লাইনের তার খুটি খুলে নিয়ে গেছে অন্যাত্র। একই অবস্থা পৌর এলাকার উত্তর কৃষ্ণপুর, চাঁদপাড়া। জানাগেছে পৌর এলাকার সন্নিকটে শিবনগর ইউপির রাজারামপুর ফকিরপাড়া , ঘাটপাড়া এলাকায় বিদুৎ কার্য্যলয় থেকে কোন প্রকল্প না থাকলেও, এখন ওই এলাকায় বিদুৎ সংযোগ আছে, এই সংযোগ গুলো দেয়া হয়েছে অন্য এলাকার তার খুটি দিয়ে, একই অবস্থা শিবনগর ইউপির সমসের নগর, চোকার হাট ও শিবনগর এলাকায়। আর এই সকল অবৈধ বিদুৎ সংযোগ দিয়ে হাতিয়ে নিয়েছে লাখ লাখ টাকা, কর্মচারীদের সাথে রয়েছে, স্থানীয় একটি প্রভাবশালী রাজনৈতিক মহল। এজন্য ওই চক্রটির বিরুদ্ধে কেউ মুখও খুলতে চায় না।

বিদুৎ সরবরাহ কেন্দ্রের কয়েজন কর্মকর্তা নাম প্রকাশ না করার সত্বে বলেন, ফুলবাড়ী বিদুৎ সরবরাহ কেন্দ্রে যে পরিমান বিদুতের প্রয়োজন তা আছে , কিন্তু অতিরিক্ত সংযোগ দেয়ার কারনে এই লোড শেডিং শুরু হয়েছে।

এই বিষয়ে ফুলবাড়ী আবাসীক প্রকৌশলী মাহাবুব আলমের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, বিদুৎ অফিসে যদি কোন অনিয়ম হয়ে থাকে, তা আমার দায়ীত্ব নেয়ার আগেই হয়েছে। এখন বিদুৎ লাইন গুলো ঝুঁকিপুর্ন তাই প্রায় সময় বিকল হয়ে পড়ে , বিদুৎ সরবরাহ লাইন বিকল হয়ে পড়ায়, এই সম্যসার সৃষ্টি হয়েছে। এদিকে বিদুৎ এর অসহনিয় লোড শেডিং এর কারনে অতিষ্ট বিদুৎ গ্রাহকেরা, এই অসহনিয় দুর্ভোগ থেকে রক্ষা পেতে, বিদুৎউন্নায়ন বোডের উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য