কাহারোল (দিনাজপুর) প্রতিনিধিঃ কাহারোলে আশানারূপ লিচুর ফলন না হওয়ায় চাষীরা হতাশা গ্রস্থ হয়ে পড়েছে। লিচুর জন্য বিখ্যাত ও পরিচিত দেশের উত্তরের জেলা দিনাজপুর। এই জেলায় রসালো ও সুস্বাদু লিচু চাষাবাদ হয়ে থাকে ব্যাপকহারে। দিনাজপুরের লিচু দেশের বিভিন্ন জেলা গুলোতে প্রচুর পরিমাণে রপ্তানি করা হয়।

আর দিনাজপুর জেলার কাহারোল উপজেলার লিচু চাষাবাদের ক্ষেত্রে পিছিয়ে নেই একেবারে। তবে এবার কাহারোল উপজেলার ৬টি ইউনিয়নে অন্য বছরের তুলনায় এবছর লিচুর ফলন হয়েছে অধিকাংশই কম। এর ফলে অনেক লিচু চাষী ও ব্যবসায়ীরা লাভের চেয়ে ক্ষতির আশাঙ্কা করছেন।

এদিকে সরেজমিনে উপজেলায় বিভিন্ন এলাকা ঘুরে দেখা গেছে, গত বছরের তুলনায় এবছর লিচুর ফলন অধিকাংশই কম এবং বর্তমান বাজারে লিচুর দামও রয়েছে অন্য বছরের তুলনায় কম।

এখন লিচু চাষী ও ব্যবসায়ীরা মাদ্রাজী জাতের লিচুর গাছ থেকে লিচু ভেঙ্গে বিভিন্ন পরিবহন যোগে অধিক লাভের আশায় ঢাকা সহ দেশের বিভিন্ন জেলায় রপ্তানি শুরু করেছে ইতোমধ্যে। স্থানীয় ভাবে বাজারে মাদ্রাজী লিচুর চাহিদা একেবারেই নেই বললেই চলে।

এর কারণ হিসাবে জানা যায়, রমজান মাস শুরু হওয়ায় লিচুর চাহিদা একেবারেই কম হওয়ায় ব্যবসায়ী ও লিচু চাষীরা চরম ভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হয়ে পড়েছে। বর্তমানে চায়না-৩, বেদেনা, বোম্বাই, কাঁঠালী বেদেনা জাতের লিচুর লাল বর্ণ আসতে শুরু করেছে গাছে গাছে ও থোকায়-থোকায়।

এসব জাতের লিচু আগামী কয়েকদিন পরেই লিচু চাষী ও ব্যবসায়ীরা বাজারে বিক্রি করার জন্য গাছ থেকে ভাঙ্গা শুরু করবেন বলে রসুলপুর ইউনিয়নের খোশালপুর গ্রামের লিচু চাষী মোজাম্মেল হক ও লিচু ব্যবসায়ী রহিম উদ্দীন জানান।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য