দিনাজপুর সংবাদাতাঃ ৩১ মে বুধবার বিশ্ব তামাকমুক্ত দিবস-২০১৭ উপলক্ষে দিনাজপুর সিভিল সার্জন অফিস এর আয়োজনে এবং সরকারি ও বেসরকারি সংস্থা সমূহের সহযোগিতায় বর্ণাঢ্য র‌্যালী ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

র‌্যালীর উদ্বোধন করতে গিয়ে প্রধান অতিথি দিনাজপুরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মাহাফুজ্জামান আশরাফ বলেন, তামাকের ব্যবহার কমানোর সবচেয়ে কার্যকর উপায় হচ্ছে কর বৃদ্ধি। পৃথিবীতে সবচেয়ে বেশী তামাক ব্যবহারকারী দেশগুলোর মধ্যে বাংলাদেশ অন্যতম। এদেশে ৪ কোটি ১৩ লক্ষ প্রাপ্ত বয়স্ক মানুষ সিগারেট-বিড়ি এবং ধোঁয়াবিহীন তামাক সেবন করে। ৫৮ ভাগ পুরুষ এবং ২৯ ভাগ নারী ধোঁয়াযুক্ত বা ধোঁয়াবিহীন তামাক সেবন করে।

প্রতি বছর তামাক ব্যবহার জনিত অসুখে ১ লক্ষ মানুষ মৃত্যুবরণ করে। শুধু আইন প্রয়োগ করে তামাকের ব্যবহার প্রতিরোধ করা সম্ভব নয়। এর জন্য চাই সামাজিক আন্দোলন। র‌্যালীটি শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিন শেষে দিনাজপুর জেনারেল হাসপাতালে গিয়ে শেষ হয়। হাসপাতালের সভাকক্ষে সিভিল সার্জন ডাঃ মাওলা বক্স চৌধুরী এর সভাপতিত্বে স্বাগত বক্তব্য রাখেন ডেপুটি সিভিল সার্জন ডাঃ শামীম আরা নাজনীন।

বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার সমরেশ মজুমদার, উপজেলা স্বাস্থ্য ও পঃপঃ কর্মকর্তা ডাঃ ইমদাদুল হক, আরসিডিএ’র নির্বাহী পরিচালক জিনাত রহমান ও সহকারী শিক্ষা অফিসার সুবাস চন্দ্র সরকার, শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন অনুঘটক সংস্থার নির্বাহী পরিচালক মোঃ আনোয়ারুল ইসলাম বাবলু, মমতা পল্লী উন্নয়ন সংস্থার নির্বাহী পরিচালক মোঃ ইয়াকুব আলী, প্রতিবন্ধী বিদ্যালয় ও পূনর্বাসন সংস্থার সাধারণ সম্পাদক বিলকিস আরা ফয়েজ, ডিসি সংস্থার নির্বাহী পরিচালক মোঃ হাফিজুর রহমান, ব্র্যাক জেলা প্রতিনিধি মোঃ মহশিন আলী, এমএনএন ফাউন্ডেশনের নির্বাহী পরিচালক মোঃ আব্দুল হামিদ, ব্রিসডো’র নির্বাহী পরিচালক মির্জা ওবায়দুর রহমান, বিবিডিএস এর নির্বাহী পরিচালক মোঃ জিল্লুর রহমান। সঞ্চালকের দায়িত্ব পালন করেন সিভিল সার্জন অফিসের সিনিয়র স্বাস্থ্য শিক্ষা অফিসার মোঃ সাইফুল ইসলাম।

সভায় এবং র‌্যালীতে নার্সিং ইনস্টিটিউটের শিক্ষার্থী, এনজিও প্রতিনিধিবৃন্দ, পৌরসভার প্রতিনিধিবৃন্দ ও দিনাজপুর সদর হাসপাতালের ডাক্তার, কর্মকর্তা-কর্মচারীবৃন্দ অংশগ্রহণ করেন।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য