প্রেম করার অভিযোগে বীরগঞ্জের এক স্কুল ছাত্রকে নির্যাতন করে হাত-পা বেধে মাথার চুল কেটে অর্ধ নেড়ে করে দেওয়া হয়েছে। পরে এলাকাবাসীর সহায়তায় তাকে উদ্ধার করে।

২৪মে দিবাগত রাতে জেলার বীরগঞ্জের ঝাড়বাড়ী উচ্চ বিদ্যালয়ের ১০ম শ্রেণীর ছাত্র সাব্বির হোসেন উজ্জল(১৫) এ ঘটনার শিকার হয়। বীরগঞ্জর শতগ্রাম ইউপির রাঙ্গালীপাড়া গ্রামের জয়নাল আবেদীনের ছেলে সাব্বির হোসেন উজ্জল।

ঘটনা সম্পর্কে সাব্বিরের বড় ভাই খোকন জানান, ঝাড়বাড়ী সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোঃ জাহেদ আলীর মেয়ে এবং আমার ভাই ঝাড়বাড়ী উচ্চ বিদ্যালয়ের ১০ম শ্রেণীর শিক্ষার্থী। একই শ্রেণীতে পড়ার সুবাদে তাদের কথাবার্তা বা সম্পর্ক হতে পারে। কিন্তু ২৪ মে রাত ৮টার দিকে আমার ভাই ভাই সাব্বির পাশে জামতলী বাজার যায় মোবাইল ফ্লাক্সির জন্য। কিন্তু ফিরে আসার সময় তাকে তুলে নিয়ে ঝাড়বাড়ী সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোঃ জাহেদ আলীর বাড়ীতে নিয়ে যায়। তাকে সেখানে রশি দিয়ে হাত-পা বেধে মারধর করে চুল কেটে অর্ধ নেড়ে করে দেয়।

এখবর পেয়ে আমরা কাশিডাঙ্গার বর্তমান মেম্বার সালামকে নিয়ে ওই বাড়ীতে যায়। অসুস্থ্য অবস্থায় তাকে নিয়ে আসি। ২৬মে বাড়ীতে চিকিৎসা দেয় কিন্তু ভাল না হওয়ায় বীরগঞ্জ হাসপাতালে ভর্তি করি। পরে সুস্থ্য হলে ২৮মে তাকে বাড়িতে আনি। এ ঘটনার কথা প্রধান শিক্ষক মোঃ জাহেদ আলীর বড়ভাই ঝাড়বাড়ী উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোঃ গোলাম মোস্তফাকে জানালে তিনি আরও বলেন, এটা নিয়ে বাড়াবাড়ি করো না। করলে তোমার ভাইয়ের ভবিষ্যৎ খারাপ হবে বলে হুমকি দেয়। এটা চেয়ারম্যান ডা. কেএম কুতুবউদ্দিনকে জানালে আইনের আশ্রয় নিতে বলেন।

ঝাড়বাড়ী উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোঃ গোলাম মোস্তফা তার বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ অস্বীকার করে জানান, ওই ছেলে সাব্বির ২৪ মে রাতে আমার ভাইয়ের মেয়ের সম্ভ্রম হানির জন্য বাড়ীতে প্রবেশ করে। এ সময় স্থানীয় কয়েকজন তাকে আটক করে মাথার চুল কেটে অর্ধ নেড়ে করে দেয়।

শতগ্রাম ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান ডা. কেএম কুতুবউদ্দিন বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, ঘটনাটি সাব্বিরের বড় ভাই খোকন আমাকে জানিয়েছে। কিন্তু বিষয়টি আমার এখতিয়ারের বাইয়ে হওয়ায় আইনের আশ্রয় নিতে পরামর্শ প্রদান করেছি।

বীরগঞ্জ থানার এসআই মোঃ আনোয়ারুল ইসলাম জানান, এ ধরণের কোন ঘটনা আমাদের জানা নেই। এবং ব্যাপারে এখন পর্যন্ত কোন লিখিত অভিযোগ পাওয়া যায়নি।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য