উত্তর কোরিয়া আজ (সোমবার) আরেকটি স্বল্প-পাল্লার ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্রের সফল পরীক্ষা চালিয়েছে। স্কাড শ্রেণির ক্ষেপণাস্ত্রটি ৪৫০ কিলোমিটার আকাশে ওড়ার পর জাপান সাগরে গিয়ে পড়েছে।

এ নিয়ে গত তিন সপ্তাহে তৃতীয় ক্ষেপণাস্ত্রের সফল পরীক্ষা চালাল পিয়ংইয়ং। এর আগের দু’টি পরীক্ষা ছিল মধ্যম ও দূর-পাল্লার ক্ষেপণাস্ত্র যেগুলোর পরীক্ষা সফল হওয়ার দাবি করেছে দেশটি।

আমেরিকার প্রশান্ত মহাসাগরীয় কমান্ড বলেছে, ক্ষেপণাস্ত্রটি উত্তর কোরিয়ার ওনসান এলাকা থেকে নিক্ষিপ্ত হয়ে ছয় মিনিট আকাশে ওড়ার পর জাপান সাগরে পড়েছে।

জাপানের মন্ত্রিপরিষদ সচিব ইয়োশিহিদে সুগা সাংবাদিকদের বলেছেন, ক্ষেপণাস্ত্রটি তার দেশের ‘সাদো’ এবং ‘ওকি’ দ্বীপের মধ্যবর্তী বিশেষ অর্থনৈতিক এলাকায় পড়েছে।

দক্ষিণ কোরিয়ার সেনাবাহিনী বলেছে, ক্ষেপণাস্ত্রটি ১২০ কিলোমিটার উঁচুতে উঠেছিল। এ ছাড়া, উত্তর কোরিয়া আজ একাধিক ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপ করে থাকতে পারে বলেও সিউল জানিয়েছে।

উত্তর কোরিয়া একটি বিমান বিধ্বংসী ক্ষেপণাস্ত্র ব্যবস্থার সফল পরীক্ষা চালানোর খবর ছবিসহ প্রকাশ করার পরদিন এই ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্রের পরীক্ষা চালানোর খবর দিল দেশটির তিন শত্রুদেশ জাপান, দক্ষিণ কোরিয়া ও আমেরিকা।

গতকালের পরীক্ষার যে ছবি উত্তর কোরিয়ার সরকারি বার্তা সংস্থা প্রকাশ করেছে তাতে দেশটির নেতা কিম জং-উনকে হাস্যোজ্জ্বল মুখে পরীক্ষাটি পর্যবেক্ষণ করতে দেখা গেছে।

উত্তর কোরিয়ার কাছে সাবেক সোভিয়েত ইউনিয়নের কাছ থেকে পাওয়া স্বল্প-পাল্লার স্কাড ক্ষেপণাস্ত্রের বিশাল মজুদ রয়েছে। এই ক্ষেপণাস্ত্রের উন্নত সংস্করণ ১,০০০ কিলোমিটার দূরের লক্ষ্যবস্তুতে আঘাত হানতে সক্ষম।

জাতিসংঘ উত্তর কোরিয়াকে সব ধরনের ক্ষেপণাস্ত্র ও পরমাণু অস্ত্রের পরীক্ষা চালাতে নিষেধ করলেও তা লঙ্ঘন করে এসব পরীক্ষা চালাচ্ছে দেশটি। পর্যবেক্ষকরা মনে করছেন, ওয়ারহেড বহনে সক্ষম ক্ষেপণাস্ত্র উৎপাদনে ধীরে ধীরে সাফল্য পাচ্ছে উত্তর কোরিয়া।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য