তিন সপ্তাহেরও বেশি সময় বন্ধ থাকার পর আফগানিস্তানের সঙ্গে নিজের প্রধান সীমান্ত ক্রসিং খুলে দিয়েছে পাকিস্তান। দুই দেশের সীমান্তরক্ষীদের মধ্যে কয়েক ঘন্টা ধরে গুলি বিনিময়ে বেশ কয়েক ব্যক্তির মৃত্যুর পর ওই ক্রসিং বন্ধ করে দিয়েছিল ইসলামাবাদ।

পাকিস্তানি সেনাবাহিনী এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, আফগান কর্মকর্তারা অনুরোধ জানানোর পর ‘মানবিক কারণে’ চামান ক্রসিং খুলে দেয়া হয়েছে।

বিবৃতিতে বলা হয়, পাকিস্তান কর্তৃপক্ষ আফগানিস্তানের অনুরোধের সঙ্গে একথাও মেনে নিয়েছে যে, সীমান্তে অস্ত্রবিরতি চলবে এবং কোনো ধরনের সহিংসতা বরদাশত করা হবে না। সেইসঙ্গে একথাও জানানো হয়েছে যে, সীমান্তে পাকিস্তানি সৈন্যরা তাদের অবস্থানে মোতায়েন থাকবে।

পাকিস্তান ও আফগানিস্তানের মধ্যে অন্যতম বৃহৎ ক্রসিং হচ্ছে ওয়েশ-চামান।  এই ক্রসিং পাকিস্তানের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলীয় বেলুচিস্তান প্রদেশের চামান শহরকে আফগানিস্তানের কান্দাহার প্রদেশের ওয়েশ এলাকার সঙ্গে যুক্ত করেছে।

গত ৫ মে পাকিস্তানি কর্মকর্তারা জানিয়েছিলেন, আফগান সৈন্যরা সীমান্ত এলাকায় পাকিস্তানের একজন সরকারি কর্মচারীর ওপর গুলিবর্ষণ করেছে। ওই কর্মচারীরা সীমান্তবর্তী পাকিস্তানি গ্রাম কিল্লি লুকমান ও কিল্লি জাহাঙ্গিরে আদমশুমারির কাজে নিয়োজিত ছিলেন।  ইসলামাবাদ দাবি করে, ওই সরকারি কর্মীদের নিরাপত্তায় নিয়োজিত সৈন্যদের ওপরও গুলিবর্ষণ করে আফগান সেনারা। ওই হামলায় পাকিস্তানের অন্তত ১২ বেসামরিক ব্যক্তি নিহত এবং অপর ৪০ জনেরও বেশি আহত হয়।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য