কম্পিউটারে গোলযোগের কারণে হিথ্রো ও গ্যাটউইক বিমানবন্দর থেকে ব্রিটিশ এয়ারওয়েজের সব ফ্লাইট সাময়িকভাবে বাতিল করা হয়েছে।

বিবিসির এক প্রতিবেদনে বলা হয়, ব্রিটিশ এয়ারওয়েজ কর্তৃপক্ষ ওই দুটি বিমানবন্দর থেকে শনিবারের সব ফ্লাইট বাতিল করেছে।

যুক্তরাজ্যের দুটি বিমানবন্দর থেকে ফ্লাইট বাতিলের ঘোষণা এলেও এ সমস্যার কারণে বিশ্বজুড়ে ব্রিটিশ এয়ারওয়েজের ফ্লাইট সূচিতে ধস নেমেছে।

কম্পিউটারে গোলযোগের কারণে ব্রিটিশ এয়ারওয়েজের ওয়েবসাইটে প্রবেশ করা যাচ্ছে না। মোবাইল অ্যাপ ব্যবহার করে ‘চেক ইন’ করতে না পারার অভিযোগও করেছেন অনেক যাত্রী।

সাইবার হামলার কারণে এমনটা হয়েছে কি না, সে বিষয়ে এখনই বলা যাচ্ছে না বলে ব্রিটিশ এয়ারওয়েজের ভাষ্য।

এতে হাজার হাজার যাত্রী বিপাকে পড়েছেন। হিথ্রো ও গ্যাটউইক বিমানবন্দরে বিশৃঙ্খলা তৈরি হয়েছে।

সমস্যার জন্য যাত্রীদের কাছে ক্ষমা চেয়ে ব্রিটিশ এয়ারওয়েজ কর্তৃপক্ষ বলেছে, যত দ্রুত সম্ভব সমস্যা সমাধানে কাজ চলছে।

সমস্যা সামাধানে ব্রিটিশ এয়ারওয়েজের সঙ্গে ‘ঘনিষ্ঠভাবে’ কাজ করার কথা জানিয়েছে হিথ্রো বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষ।

এ কারণে ঠিক কতগুলো ফ্লাইট বাতিল বা বিলম্বিত হয়েছে তা নির্দিষ্ট করে জানা যায়নি।

তবে হিথ্রো ও গ্যাটউইক ছাড়াও বেলফাস্ট, রোম, প্রাগ, স্টকহোম ও মালাগায় ফ্লাইট বিলম্বের খবর পাওয়া গেছে।

হিথ্রো বিমানবন্দরে ব্রিটিশ এয়ারওয়েজের বহির্গামী উড়োজাহাজগুলো উড়াল না দেওয়ায় সেখানে অবতরণ করা উড়োজাহাজগুলো থেকে যাত্রীরা নামতে পারছেন না বলে জানিয়েছে বিবিসি।

যাত্রীদের ফ্লাইট সম্পর্কে খোঁজ খবর নিয়ে বিমানবন্দরের উদ্দেশ্যে যাত্রা করার পরামর্শ দিয়েছে হিথ্রো বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষ।

বেলফাস্ট বিমানবন্দরে অপেক্ষারত ফিলিপ ব্লুম বলেন, “কম্পিউটার ব্যবস্থায় গোলযোগের কারণে বিশ্বজুড়ে এ সমস্যা হচ্ছে, আমাদের শুধু এটুকুই বলা হয়েছে।”

রোম আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে আটকা পড়া বিবিসির প্রতিনিধি ফিলিপ নরটন বলেন, ঠিক কতক্ষণ দেরি হবে সে বিষয়ে ব্রিটিশ এয়ারওয়েজ কর্তৃপক্ষ কিছু বলতে পারছে না।

“বিশ্বজুড়ে তাদের সব ফ্লাইট এখন বিমানবন্দরে অবস্থান করছে বলে তারা জানিয়েছে।”

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য