দিনাজপুর সংবাদাতাঃ ‘সবার হৃদয়ে রবীন্দ্রনাথ-চেতনায় নজরুল’ এ কথা উল্লেখ করে দিনাজপুর সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর মো. আবু বকর সিদ্দিক বলেছেন, রবীন্দ্রনাথ ও নজরুল চর্চার মাধ্যমে দেশপ্রেম, সততা ও নিষ্ঠা দিয়ে সুখী-সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গঠন করার অঙ্গীকার নিতে নতুন প্রজন্মকে।

নতুন প্রজন্মকে লেখাপড়ার পাশাপাশি নীতি নৈতিকতা বোধ সম্পন্ন মানুষ হিসেবে গড়ে উঠতে হলে এই দুই কবি’র আদর্শকে বুকে ধারন করতে হবে। তারা যেমন শত কষ্টেও তাদের নীতির জায়গা থেকে সরে আসে নাই, তেমনি ভাবে আমাদের নতুন প্রজন্মকে সেই নৈতিকতা সম্পন্ন মানুষ হওয়া জরুরী।

২৫ মে বৃহস্পতিবার সকালে দিনাজপুর সরকারি কলেজ এর জাতীয় দিবস উদযাপন পরিষদ ও সাংস্কৃতিক কমিটির আয়োজনে কলেজ অডিটোরিয়ামে অনুষ্ঠিত বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর এর ১৫৬ তম ও জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম এর ১১৮তম জন্মবার্ষিক-২০১৭ উপলক্ষ্যে আলোচনা সভা, পুরস্কার বিতরন ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

এ সময় রবীন্দ্রসঙ্গীত ও নজরুল সঙ্গীত প্রতিযোগীতায় বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার বিতরন করেন প্রধান অতিথিসহ বিশেষ অতিথিবৃন্দ।

আলোচনা সভায় নজরুল সম্পর্কে আলোচক হিসেবে বক্তব্য রাখেন কলেজের দর্শন বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ড. এ. কে. এম. মাসুদুল হক। তিনি তার বক্তব্যে বলেন, জাতীয় চেতনা ও তরুন প্রজন্মকে গঠনমূলক পথে উদ্বোধিত ককরতে নজরুল ছিলেন নিবেদিত প্রাণ। পল্টন ফেরত নজরুল যুবকদের উদ্দেশ্যে কলকাতায় ভাষণ ও গানের আসর বসাতেন।

আলোচনা সভায় রবীন্দ্রনাথ সম্পর্কে আলোচক হিসেবে বক্তব্য রাখেন কলেজের বাংলা বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক মো. লাল মিঞা। তিনি তার বক্তব্যে বলেন,  রবীন্দ্রনাথের কবি ও সাহিত্যিক পরিচয়ের বাইরে দার্শনিক, রাজনীতিক, জমিদার ও স্বদেশপ্রেমী রবীন্দ্রনাথকে কম সংখ্যক মানুষই জানেন।

জাতীয় দিবস উদযাপন পরিষদ ও সাংস্কৃতিক কমিটির আহবায়ক প্রফেসর সরল কান্তি সাহা’র সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন কলেজের উপাধ্যক্ষ প্রফেসর সৈয়দ মোহাম্মদ হোসেন, শিক্ষক পরিষদের সাধারন সম্পাদক এ. কে. এম. আল আব্দুল্লাহ।

এছাড়াও অনুষ্ঠানে অন্যান্যদের মধ্যে কলেজের প্রাণিবিদ্যা বিভাগের বিভাগীয় প্রধান প্রফেসর আব্দুল জলিল আহমেদ,  সহকারী অধ্যাপক ও বিসিএস সাধারন শিক্ষা সমিতির দিসক এর সাধারন সম্পাদক সঞ্জিব কুমার সাহা, পদার্থবিদ্যা বিভাগের বিভাগীয় প্রধান প্রফেসর সাহান আরা আফরোজসহ সকল বিভাগের শিক্ষক-শিক্ষিকা ও শিক্ষার্থীবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

পরে এক সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করেন কলেজের নাট্য ও সাংস্কৃতিক জোটের শিল্পীরা। তারা রবীন্দ্র সঙ্গীত ও নজরুল সঙ্গীত পরিবেশনের মাধ্যমে অনুষ্ঠান শেষ করা হয়।

অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন কলেজের ইতিহাস বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মো. মাজেদুর রহমান সরকার।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য