ক্যামেরার পেছনে নারীদের অনুপস্থিতি এখনও চলচ্চিত্র দুনিয়ায় প্রকট’- ঠিক এই মন্তব্যটাই করেছেন হলিউড নন্দিনী নিকোল কিডম্যান। তাই নারী পরিচালকদের জন্য সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিতে সবার প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন তিনি। গত বুধবার সকাল ১১টায় পালে দো ফেস্টিভাল ভবনের সংবাদ সম্মেলন কক্ষে ‘দ্য বিগাইল্ড’ ছবির পক্ষে হাজির হন নিকোল কিডম্যান।

১৯৭১ সালে নির্মিত একই নামের একটি ছবির রিমেক এটি। তবে নারী নির্মাতা সোফিয়া কপোলা রিমেক করেছেন নারীদের দৃষ্টিকোণ থেকে। কান উৎসবের ৭০তম আসরে প্রতিযোগিতা বিভাগে নির্বাচিত ১৯টি ছবির তালিকায় আছে ‘দ্য বিগাইল্ড’। এ বছর ফরাসি সৈকতে নির্বাচিত নারী নির্মাতাদের একডজন ছবির মধ্যে এটি অন্যতম। থমাস পি কালিন্যানের গ্রন্থ অবলম্বনে তৈরি হয়েছে ‘দ্য বিগাইল্ড’।

এতে আশ্রিতা তরুণী ও কিশোরীদের প্রধান মার্থা ফার্নসওর্থ চরিত্রে অভিনয় করেছেন নিকোল কিডম্যান। নিকোল কিডম্যান বলেন, ‘কেবল ৪.২% নারী পরিচালক গত বছর বড় পরিসরে কাজ করেছেন। এটি ওম্যান ইন ফিল্ম গ্রুপের পরিসংখ্যান। ২০১৬ সালে চার হাজার পর্বের টিভি সিরিজ তৈরি হলেও নারীদের বানানো ছিল মাত্র ১৮৩টি। আশা করি, এ চিত্রটা বদলাবে।

তবে এজন্য আমাদের উচিত নারী নির্মাতাদের সহায়তা করা। এবারের কান উৎসবে নিকোল কিডম্যানের তিনটি ছবি ও একটি টিভি সিরিজ স্থান পেয়েছে। এর মধ্যে জেন ক্যাম্পিয়নের টিভি সিরিজ ‘টপ অব দ্য লেক: চায়না গার্ল’-এ তার চরিত্রটি সমকামী এক মায়ের। প্রতিযোগিতা বিভাগে ‘দ্য বিগাইল্ড’ ছাড়াও আছে নিকোল কিডম্যানের ‘দ্য কিলিং অব অ্যা স্যাক্রেড ডিয়ার’। এ ছাড়া প্রতিযোগিতা বিভাগের বাইরে দেখানো হয়েছে ‘হাউ টু টক টু গার্লস অ্যাট পার্টিস’।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য