নেপালের মাওবাদী প্রধানমন্ত্রী পুষ্প কমল দহল পদত্যাগ করেছেন। সাবেক গেরিলা নেতা পুষ্প কমল দহল ‘প্রচন্ড’ নামেই বেশি পরিচিতি। সাবেক এক রাজনৈতিক প্রতিপক্ষের কাছে নির্ধারিত ক্ষমতা হস্তান্তর প্রক্রিয়ার অংশ হিসেবে প্রচন্ড গত বুধবার তিনি পদত্যাগ করলেন। খবর এএফপি’র। মূলধারার রাজনীতিতে আসার আগে এক দশক ধরে পুষ্প কমল দহল মাওবাদী বিদ্রোহে নেতৃত্ব দেন।

তিনবারের সাবেক প্রধানমন্ত্রী শের বাহাদুর দেউবা তার স্থলাভিষিক্ত হচ্ছেন বলে ধারণা করা হচ্ছে। ২০০৬ সালে গৃহযুদ্ধের অবসান হওয়ার পর দেউবা হবেন দেশটির দশম প্রধানমন্ত্রী। শের বাহাদুর দেউবা বর্তমান জোট সরকারের প্রধান শরিক দলটির নেতৃত্ব দিচ্ছেন।আজ টেলিভিশনে দেওয়া এক ভাষণে পুষ্প কমল দহল বলেন, ‘একজন রাজনীতিক, পার্লামেন্টারিয়ান ও নাগরিক হিসেবে দেশের উন্নয়নে সক্রিয় থাকার প্রতিজ্ঞা নিয়ে আমি আজ, ঠিক এখনই, প্রধানমন্ত্রী পদ থেকে পদত্যাগের ঘোষণা দিচ্ছি।’

ওই ভাষণে পুষ্প কমল তার সরকারের সাফল্যের বিবরণ তুলে ধরেন। গত বছরের আগস্টে একটি চুক্তির অংশ হিসেবে স্থানীয় নির্বাচনের পর তিনি পদত্যাগ করার ঘোষণা দিয়েছিলেন। ওই চুক্তি অনুযায়ীই ক্ষমতায় এসেছিলেন পুষ্প কমল দহল। ১০ দিন আগে নেপালের সাতটি প্রদেশের মধ্যে তিনটিতে স্থানীয় নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। আগামি ১০ দিনের মধ্যে পার্লামেন্টে ভোটের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী পদে দেউবার নিয়োগ নিশ্চিত করা হবে বলে ধারণা করা হচ্ছে। তৎকালীন সরকারের ওপর থেকে সমর্থন প্রত্যাহার এবং দেউবার মধ্য-ডানপন্থী দল নেপালি কংগ্রেসের সঙ্গে নিজের মাওবাদী দলের জোট গড়ার মধ্য দিয়ে ৬২ বছর বয়সী পুষ্প কমল দহল ক্ষমতায় আসেন।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য