মোঃ শামসুল আলম বোচাগঞ্জ থেকেঃ গত ২২ মে সোমবার রাতে সামন্য ঝড়েই ভেঙ্গে পড়েছে সেতাবগঞ্জ জিমনেসিয়ামের নব নির্মিত ভবনটি। সেতাবগঞ্জ বড়মাঠে ২০১৫ সালে জেলা পরিষদের অর্থায়নে প্রায় ৬০ লাখ টাকা ব্যয়ে জিমনেসিয়ামটির কাজ শুরু করে দিনাজপুরের ঠিকাদার গৌড় রায়।

উক্ত ঠিকাদারের নিকট আত্মীয় বোচাগঞ্জ উপজেলা ক্রীড়া সংস্থার অতিরিক্ত সম্পাদক শ্রী তীলক কুমার শীল কাজ দেখা শূনার মূল দায়িত্বে ছিলেন। ঠিকাদার ও জেলা পরিষদের প্রকৌশলী মোঃ মানিক এর গাফিলতির কারনেই ভবনটি নির্মানাধীণ অবস্থায় ভেঙ্গে পড়েছে। ২০১৬ ইং সালে জিমনেশিয়ামের প্রথম পর্বের কাজ শেষ হয়।

অবশিষ্ট কাজ প্রক্রিয়াধীন থাকা অবস্থায় ভবনটির প্রথম অংশ ভেঙ্গে পড়ায় পুরো ভবনটি এখন আশংকা জনক অবস্থায় রয়েছে। সামন্য ঝড়েই ভবনটি ভেঙ্গে পড়ায় এলাকাবাসী অত্যন্ত নিম্নমানের কাজ হয়েছে বলে অভিযোগ করেন। ভবনের ইট ভেঙ্গে পড়ার পাশাপাশি বিভিন্ন কলামগুলো ভেঙ্গে পড়েছে।

ভবনের পূর্ব পার্শ্বে বেশ কয়েকটি বাড়ী থাকায় ঐ বাড়ীগুলোর মানুষ চরম ঝুকির মধ্যে রয়েছে। সেতাবগঞ্জের সর্বস্তরের মানুষ জিমনেশিয়াম নির্মানে নিম্ন মানের কাজ করায় সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ এবং ঠিকাদার সহ সকলকে বিচারের আওতায় আনার দাবী জানিয়েছে।

ঘটনার পর উপজেলা নির্বাহী অফিসার শীলব্রত কর্মকার, সেতাবগঞ্জ পৌরসভার মেয়র আব্দুস সবুর সহ সাংবাদিকরা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। জেলা পরিষদের সদস্য নুরে আলম খন্দকার কায়ছার জানান, বিষয়টি নিয়ে জেলা পরিষদ ৩ সদস্য বিশিষ্ট তদন্ত কমিটি গঠন করেছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য