দিনাজপুর থেকে নুর ইসলামঃ ২০ মে শনিবার নভারা জুনিয়র হাই স্কুল-এর দিন ব্যাপী বার্ষিক বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মেলা উপস্থিত বক্তৃতা ও বিতর্ক প্রতিযোগিতা-২০১৭ অনুষ্ঠিত হয়। উক্ত অনুষ্ঠানে প্রতিষ্ঠানের প্রধান শিক্ষিকা সিস্টার হাসি গমেজ সিআইসি’র সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কারিতাস দিনাজপুরের আঞ্চলিক পরিচালক যোগেন জুলিয়ান বেসরা।

বিশেষ অতিথি সেন্ট ফ্রান্সিস জেভিয়ার স্কুলের প্রধান শিক্ষিকা সিস্টার শিউলী ক্রুশ সিআইসি, সুইহারী মিশনের পাল পুরোহিত ফাদার জন বাপ্টিস্ট জাংকি পিমে। অন্যান্য অতিথিদের মধ্যে ছিলেন সুজন রোজারিও, সিস্টার পিরিণা দাস, কারিতাসের কর্মকর্তা ক্লেমেন্টে তির্কি প্রমুখ। অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন সহকারী শিক্ষক কৌশলা রোজারিও ও সবুজ দাস।

দিন ব্যাপী বার্ষিক বিজ্ঞান মেলায় তৃতীয় থেকে অষ্টম শ্রেণি পর্যন্ত শিক্ষার্থীদের নিয়ে ৩৯০ জন ক্ষুদে বিজ্ঞানীদের দ্বারা তৈরিকৃত ১৩০টি প্রজেক্ট স্থাপন করা হয়। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি তার বক্তব্যে শিক্ষার্থীর অভিভাবকদের উদ্দেশ্যে বলেন, আমরা অভিভাবকরা সন্তানদের জিজ্ঞাসা করি না তুমি কি হতে চাও।

সন্তানদের নিজ ইচ্ছা প্রচেষ্টা থাকা সত্ত্বেও সেদিকে উৎসাহিত প্রদান না করে আমরা অভিভাবকেরা আমাদের ইচ্ছায় তাদের গড়ে তোলার জন্য চেষ্টা করি। এই চেষ্টায় যদি সন্তানেরা সন্তুষ্টজনক ফলাফল তৈরি করতে না পারে তবে সেই সন্তানদের দশারোপ করে আসছি। কিন্তু লক্ষ্য করলে দেখা যাবে সন্তানেরা তাদের ইচ্ছা শক্তি বিকাশ ঘটিয়ে যে ফলাফল তৈরি করবে তা অবশ্যই সুবিধাজনক। সেই ইচ্ছা শক্তিকে আমরা চাপিয়ে রেখে তাদের চিন্তাভাবনাকে বর্হিপ্রকাশ করতে দিচ্ছি না। তাই আমাদের উচিৎ সন্তানদের চিন্তা ভাবনায় তাদের বেড়ে উঠার সুযোগ দিতে হবে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য