ঢাকা থেকে ছেড়ে আসা আন্তঃনগর নীলসাগর ট্রেনে সৈয়দপুর রেলওয়ে পুলিশের বিশেষ অভিযানে আটক চোরাকারবারি ও তাদের কাছ থেকে জব্দ করা ভারতীয় কাপড় ছিনতাইয়ের ঘটনা ঘটেছে। এ সময় আহত হয়েছে মহিলা পুলিশ সদস্য রোজিনা, নিহার, লাভলী এবং পুলিশ সদস্য এমদাদুল ও দুরুল হুদা। আহতদের সৈয়দপুর ১০০ শয্যা হাসপাতাল থেকে চিকিৎসা নেয়া হয়।

বৃহস্পতিবার রাতের ওই ছিনতাইয়ের ঘটনায় ওই রাতেই এটিএসআই হাফিজুর রহমান নিজে বাদী হয়ে ৮ জনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত ৪০-৫০ জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করে। মামলা নং-০১, তারিখ-১৯/০৫/২০১৭। তবে এখন পর্যন্ত কাউকে আটক করতে পারেনি পুলিশ। মামলায় সৈয়দপুর পৌর আ’লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি রফিকুল ইসলাম বাবু, পৌর আ’লীগের সাধারন সম্পাদক মোজাম্মেল হক, পৌর আ’লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক জোবায়দুর রহমান শাহিন, ছাত্রলীগের সাবেক সাধারন সম্পাদক শরিফুল ইসলাম টিটু, সাবেক কাউন্সিলর ইকবাল হোসেন গুড্ডু, ছাত্রলীগ কর্মী ছাত্রলীগে কর্মী কালু, শাহীন ও বাবুকে আসামী করা হয়েছে।

সৈয়দপুর পৌর আ’লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি রফিকুল ইসলাম বাবু জানান, পাসপোর্টধারী হিরা ও ফুলমনিকে চোরাচালানি আখ্যা দিয়ে রেলওয়ে পুলিশ অহেতুক আটক করে। তাদের কাছে বহনযোগ্য ভারতীয় কয়েক পিচ কাপড় থাকায় টাকা দাবী করে পুলিশ। দাবীকৃত টাকা না দেয়ায় তাদেরকে থানায় নিয়ে আসে। আমরা বিষয়টি জানার জন্য থানায় যাই। কিন্তু সেখানে কোন প্রকার অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেনি। পুলিশ নিজেদের বাঁচার জন্য ছিনতাইয়ের ঘটনাটি সাজিয়েছে।

সৈয়দপুর রেলওয়ে জেলা পুলিশ সুপার সিদ্দিকী তানজিলুর রহমান জানান, স্থানীয় নেতাকর্মীরা সৈয়দপুর জিআরপি থানার ওসি লুৎফর রহমানকে ভয় দেখিয়ে কর্মরত পুলিশ সদস্যকে মারপিট করে আটক চোরাকারবারী মোহাম্মদ আলী হিরা ও মোছাম্মদ ফুলমনিকে ছিনিয়ে নেয়ার পাশাপাশি তাদের কাছ থেকে পুলিশ কর্তৃক জব্দকৃত ১০৪ পিচ বিভিন্ন বয়সের তৈরী কাপড় নিয়ে যায়।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য