মাসুদ রানা পলক, ঠাকুরগাঁও থেকেঃ খাদ্য মন্ত্রী এ্যাডভোকেট মোঃ কামরুল ইসলাম বলেছেন, আগামী মৌসুমে কৃষকদের তালিকা খাদ্য অধিদপ্তরের গোডাউনের সামনে টাংঙ্গিয়ে দেয়া হবে।  কারা কারা এ গোডাউনে গম বা চাল দিতে পারবে। আমরা চেষ্টা করছি কৃষকের স্বার্থ রক্ষা করতে। বাজারকে অস্তিশীল করতে ষড়যন্ত্র করা হচ্ছে। দাবি করা হচ্ছে ভারত থেকে খাদ্য আমদানি হচ্ছে সেই ট্যারিফ উঠিয়ে দিতে হবে। আমাদের মাননীয় প্রধাণমন্ত্রী তাতে রাজি হননি। তার কারন কৃষকের ক্ষতি হবে। কৃষক যেনো ন্যায্য মুল পায় সে দিকে লক্ষ্য রেখেই কাজ করা হচ্ছে।

প্রয়োজনে আন্তর্জাতিক বাজার থেকে চাল আমদানি করা হবে। কৃষকদের স্বার্থের কথা চিন্তা করে ট্যারিফ উঠানো হচ্ছে না।  একটা ভুল প্রচারনা হচ্ছে অভিযান সংগ্রহ হচ্ছে না। তা থেকে বিরত থেকে সাংবাদিকদের সঠিক তথ্য প্রচার করার আহবান জানান তিনি।

তিনি আজ মঙ্গলবার সকাল ১১টায় ঠাকুরগাঁও জেলা প্রশাসক কার্যালয়ে জেলা খাদ্য কর্মকর্তাদের সাথে মত বিনিময়কালে এসব কথা বলেন। এসময় সংরক্ষিত আসনের মহিলা এমপি সেলিনা জাহান লিট্,ু জেলা আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক সাদেক কুরাইশী, জেলা প্রশাসক আব্দুল আওয়ালসহ প্রশাসনের উর্ধতন কর্মকর্তাগন উপস্থিত ছিলেন।
অনুষ্ঠানে সতর্স্ফুতভাবে জেলা ৩৭টি মিল মালিক ২ হাজার ৫০০ মেঃ টন চাল সংগ্রহের জন্য চুক্তিবন্ধ হন।

চলতি মৌসুমে জেলা খাদ্য বিভাগ গমের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারন করে ১৭ হাজার ৯শ মেঃ টন। আর এ পর্যন্ত গম সংগ্রহ হয়েছে ৭৩৯ মেঃ টন গম। অন্যদিকে চালের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারন করা হয় ৩৬ হাজার ৯শ ৮১ মেঃ টন। আর এ পর্যন্ত সংগ্রহ হয়েছে ২ হাজার ৫শ মেঃ টন চাল।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য