Dr.-E-Photoআরিফ উদ্দিন, গাইবান্ধা থেকেঃ গত বুধবার রাতে গাইবান্ধার পলাশবাড়ীর পল্লীতে সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের বাৎসরিক সার্ব্বভৌম জেলা ভক্ত সম্মেলনী অনুষ্ঠানে মুখোশধারী একদল দুস্কৃতিকারীর নগ্ন হামলায় মহিলাসহ ৭জন আহত হয়েছে। আহতদের চিকিৎসার জন্য পলাশবাড়ী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। এ ঘটনায় হিন্দু অধ্যুষিত কাশিয়াবাড়ী এলাকার সনাতন ধর্মাবলম্বীদের মাঝে চরম অসন্তোষের সৃষ্টি হয়েছে। নির্বাচনী এলাকার এমপি, জেলা-উপজেলা প্রশাসন, রাজনৈতিক, সামাজিক, সাংস্কৃতিক ও পেশাজীবি সংগঠন সমূহের নেতৃবৃন্দ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। লোকজনের এ ব্যাপারে এজাহার নামীয় ৮জনসহ আরো ৮/১০জনকে আসামী করে থানায় মামলা দায়ের হয়েছে। মামলার বিবরণে জানা যায়, অন্যান্য বছরের ন্যায় এ বছরেও তিনদিন ব্যাপী অত্র সংগঠনের উদ্যোগে কিশোরগাড়ী ইউনিয়নের কাশিয়াবাড়ী পশ্চিম রামচন্দ্রপুর ঠাকুরবাড়ী মন্দির প্রাঙ্গণে সম্মেলন শুরু হয়। প্রথম দিন বুধবার অনুষ্ঠান শুরুর ঠিক আগ মুহুর্ত্বে কিছু বুঝে আগেই আকস্মিক একদল মুখোশধারী দুস্কৃতিকারী নগ্ন হামলা চালায়। ফলে অনুষ্ঠান স্থলে সমেবেতদের মাঝে ভিতিরসঞ্চার হয়। তারা দিক-বিদিক ছুটাছুটি করতে থাকে। হামলাকারী এসময় অনুষ্ঠান স্থলে আসা ভক্তকুলের উপর বেধরক মারপিট শুরু করে। এতে সমবেত ভক্তকুলের মধ্যে পশ্চিম রামচন্দ্রপুর গ্রামের স্বর্গীয় যতিশ চন্দ্রের স্ত্রী সিন্ধু বালা (৬০), চিত্যন চন্দ্রের স্ত্রী অঞ্জলী রাণী (৪৮), স্বর্গীয় নিতাই চন্দ্রের পুত্র অলক কুমার (২৫), স্বর্গীয় রণবির চন্দ্রের পুত্র বিলু সরকার (৩০) ও বিতন চন্দ্র প্রামানিকের পুত্র ইমন চন্দ্র (২৬)সহ ৭জন আহত হয়। আহতদের চিকিৎসার জন্য পলাশবাড়ী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। এ ব্যাপারে স্বপন ভট্টাচার্য্য বাদী হয়ে থানায় একটি মামলা (নং-১৪, তাং- ২৭/০৩/১৪ইং) দায়ের করেছেন। এদিকে সংবাদ পেয়ে রাতেই গাইবান্ধার জেলা প্রশাসক আবু বক্কর সিদ্দিক (সার্বিক), কামাল উদ্দিন আহম্মেদ (রাজস্ব), অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোশারফ হোসেন, উপজেলা নির্বাহী অফিসার মুহাম্মদ মাহবুবুল হক, থানা অফিসার ইনচার্জ (দায়িত্বপ্রাপ্ত) ফিরোজ কবির ঘটনাস্থল এবং হাসপাতালে আহতদের দেখতে যান। এ সময় কর্মকর্তারা অত্রালাকার সনাতন ধর্মালম্বীদের প্রতি তদন্ত সাপেক্ষে জড়িতদের বিরুদ্ধে জরুরী ব্যবস্থা গ্রহণে আশ্বাস প্রদান করেন। এদিকে গতকাল বৃহস্পতিবার প্রেসক্লাব সভাপতি মনজুর কাদির মুকুল, সাধারণ সম্পাদক সিরাজুল ইসলাম রতন ও জেলা পিকআপ মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক মুহাম্মদ সেলিমসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক, সাংস্কৃতিক ও পেশাজীবি সংগঠনের নেতৃবৃন্দ পৃথক পৃথক ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য