রংপুরের পীরগঞ্জ উপজেলার বিভিন্ন হাটবাজারে মেট্রিক পদ্ধতী চালু হলেও বাটখারা ব্যবহারে সাধারন ক্রেতা বিক্রতাদের প্রতিনিয়ত প্রতারিত হতে হচ্ছে।

সরেজমিন অনুসন্ধানে জানা গেছে,এক শ্রেণীর অসৎ ব্যবসায়ী ১ কেজির বাটখরাগুলোকে বিশেষ কৌশলে কেটে ৯’শ গ্রাম করে নিয়ে বিক্রির সময় ব্যবহার করছে। আবার ক্রয়ের সময় ওই ব্যবসায়ীই প্রকৃত ১ কেজি ওজনের বাটখারা ব্যবহার করছে। বাটখারাগুলোর নিচের অংশে কৌশলে গোলাকার গর্ত করে ১’শ গ্রাম কেটে ফেলা হয়েছে।

উল্টেপাল্টে না দেখলে এগুলো বোঝার কোন উপায় নেই। গোটা উপজেলার হাটবাজারগুলোতে প্রতিনিয়ত এ অপকর্ম চলছে। অভিযোগ রয়েছে,খালাশপীর,সানেরহাট,চতরা,ভেন্ডাবাড়ি,মাদারগঞ্জ,টুকুরিয়া,গুর্জিপাড়া,জাহাঙ্গিরাবাদ,ধাপেরহাট,পতœীচড়া,কলোনীবাজার,মন্ডলের বাজার এমনকি খোদ উপজেলা সদরের বাজারেও বাটখারার এ প্রতারনা চলছে।  বাটখারার এ প্রতারনার শিকার হচ্ছেন সাধারন ক্রেতা বিক্রেতারা। মাসের পর মাস উপজেলা সদরের বাজারে কর্তা ব্যক্তিরাও বাটখারা প্রতারনার শিকার হচ্ছেন।

বিভিন্ন এলাকায় ভেজাল বিরোধী অভিযান পরিচালিত হচ্ছে মাঝে মধ্যে। তার পরেও বাটখারার এ প্রতারনা রোধে কোন প্রকার আইনগত পদক্ষেপ নেয়ার কোন রেকর্ড নেই পীরগঞ্জ উপজেলা প্রশাসনের দপ্তরে !

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য