হাকিমপুর (দিনাজপুর) সংবাদদাতাঃ অবশেষে আটকে থাকা ভারতীয় ট্রাক থেকে চাল খালাস শুরু করেছেন দিনাজপুরের হাকিমপুর উপজেলার হিলি স্থল বন্দরের আমদানিকারকরা। চাল আমদানিতে শুল্ক প্রত্যাহার করা হবে এমন প্রত্যাশায় সাত-আটদিন আগে ভারত থেকে আমদানি হওয়া পণ্য খালাস নেয়া বন্ধ রেখেছিলেন তারা। তবে এখনো অনেকে শুল্ক প্রত্যাহারের আশায় চাল খালাস করে বন্দরের ওয়্যার হাউজে জমা রাখছেন।

শনিবার থেকে আটকে পড়া চালের ট্রাকগুলো থেকে চাল খালাস কার্যক্রম শুরু করেছেন আমদানিকারকরা। ফলে বন্দরে আটকে থাকা চালবোঝাই ট্রাকের সংখ্যা কমতে শুরু করেছে।

হিলি স্থলবন্দরের কাস্টমস সিঅ্যান্ডএফ এজেন্টগন জানান, সম্প্রতি দেশের দক্ষিণের হাওড় অঞ্চলসহ দেশের বিভিন্ন নিন্মাঞ্চল আগাম বন্যায় বোরো ধানের ব্যাপক ক্ষতি হওয়ায় দেশে চালের সংকট দেখা দিয়েছে। ফলে আমদানি করা চালের চাহিদা বেড়ে যায়। বাড়তি চাহিদা পূরণ ও দাম সাধারণের নাগালে রাখতে চাল আমদানিতে শুল্ক প্রত্যাহারের প্রস্তাবের কথা সরকারের বিবেচনাধীন রয়েছে বলে ৪ মে খাদ্যমন্ত্রী জানান।

এমন ঘোষণার পরিপ্রেক্ষিতে ৪ মে বা তার আগে আমদানি করা চাল ট্রাক থেকে খালাস না করে ট্রাকগুলো বন্দরেই দাঁড় করিয়ে রাখে। কিন্তু ঘোষণাপরবর্তী সময়ে শুল্ক প্রত্যাহারের বিষয়ে কোনো সিদ্ধান্ত না হওয়ায় শনিবার থেকে চাল খালাস করা শুরু হয়।

হিলি স্থলবন্দর পরিচালনাকারী প্রতিষ্ঠান পানামা হিলি পোর্ট লিংক লিমিটেড সুত্রে জানা যায়, আমদানিতে শুল্ক প্রত্যাহার নিয়ে জটিলতায় বন্দরে আটকে পড়া ট্রাকগুলো থেকে আমদানিকারকরা চাল খালাস করে নিতে শুরু করেছেন। ফলে ট্রাকের সংখ্যা কমতে শুরু করেছে। অনেকে চাল খালাস করে বন্দরের ওয়্যার হাউজে জমা রাখছেন।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য