‘বাহুবলি ’ এবং ‘বাহুবলি-২’ এর পর নিজেকে অন্য এক উচ্চতায় নিয়ে গেছেন ভারতের দক্ষিণী ছবির সুপারস্টার প্রভাস। জানা গেছে, ‘বাহুবলি-১’ মুক্তির পর গত পাঁচ বছরে ৬ হাজার বিয়ের প্রস্তাব পেয়েছেন প্রভাস। এবং সব প্রস্তাবই কাজের জন্য কার্যত হেলায় ফিরিয়েছেন তিনি।

তবে শুধু বিয়ের প্রস্তাবেই রেকর্ড নয়, পারিশ্রমিকেও রেকর্ড অঙ্ক দাবি করছেন নায়ক। ‘বাহুবলি’র সময় ২০ থেকে ২৫ কোটি রুপির প্যাকেজ নিয়েছেন প্রভাস। কিন্তু এই দুটি ছবি মুক্তির পর এখন সিনেমা পিছু ৩০ কোটি রুপি দাবি করছেন তিনি। প্রভাসের ঘনিষ্ঠ সূত্রের দাবি, সম্প্রতি তিনি তার পারিশ্রমিক আগের চেয়ে পাঁচ কোটি বাড়িয়ে ৩০ কোটি রুপি করেছেন।

পারিশ্রমিকের এ অঙ্ক দাবি করার সঙ্গে সঙ্গে এখন দেশের শীর্ষ স্থানীয় তারকাদের তালিকায় নাম লিখিয়েও ফেলেছেন তিনি। ‘বাহুবলি-২’ থেকে যথেষ্ট আয় করেছেন ছবির কলাকুশলীরা। এই ছবির জন্য পরিচালক এস এস রাজামৌলি পেয়েছেন ২৮ কোটি, প্রভাস এ টিমের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ আয় করেন। বল্লালদেবার চরিত্রে অভিনয় করা রানা দাঙ্গুবাটি পেয়েছেন ১৫ কোটি।

নারীদের মধ্যে মুখ্য ভূমিকায় অভিনয় করা তমান্না ভাটিয়া এবং আনুশকা শেঠী পান পাঁচ কোটি রুপির চেক। শিভাঙ্গীর চরিত্রে অভিনয় করা রামিয়া কৃষ্ণানন পেয়েছেন আড়াই কোটি এবং কট্টপার চরিত্রে অভিনয় করা সত্যরাজ ছবিতে তার চরিত্রের জন্যে পেয়েছেন দুই কোটি রুপি। এ মুহূর্তে দশম আইপিএল চলা সত্ত্বেও ‘বাহুবলি-২’ এর সাফল্যে এতটুকু ভাটা পড়েনি।

প্রথম ভারতীয় সিনেমা হিসেবে হাজার কোটির ক্লাবে ঢুকেও রেকর্ড করেছে রাজামৌলির ‘বাহুবলি-২’। এমনকি মার্কিন মুলুকেও মুক্তির পর দ্বিতীয় সপ্তাহেও শীর্ষ স্থানে থেকে নতুন রেকর্ড তৈরি করেছে এ ছবি। সে জন্যই ‘বাহুবলি’র বিশাল সাফল্যের পর প্রভাসের এ বিশাল অঙ্কের পারিশ্রমিক দাবি খুব একটা অন্যায্য নয় বলেই মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য