দিনাজপুরের খানসামা উপজেলায় হোটেল মালিক সমিতি ও হরিজন সম্প্রদায়ের দ্বন্দের জেরে উপজেলার অন্যতম ব্যবসায়ীক কেন্দ্র পাকেরহাটে অধিকাংশ হোটেল ও রেষ্টুরেট বন্ধ। আজ ৮ মে(সোমবার) বেলা ১২ টাকা থেকে পাকেরহাট হোটেল মালিক সমিতিরর ডাকে অধিকাংশ হোটেল বন্ধ রয়েছে।

জানা যায়,  হরিজন সম্প্রদায়ের লোকেরা বাজারের বিভিন্ন হোটেলে বসে খাওয়া শুরু করলে হোটেল মালিকদের সাথে শুরু হয় দ্বন্দ। এরপর থেকে দেখা যায় বাজারের অধিকাংশ হোটেলে ক্রেতার সংখ্যা কমে গেছে। তারই সূত্র ধরে, আজ দেখা যায় বাজারের মিঠুন হোটেল, বৈশাখী সুইটস, কবিতা মিষ্টান্ন ভান্ডার, প্রিয়াংকা সুইটস, তৃপ্তি হোটেল সহ ছোট-বড় প্রায় অনেক হোটেল বন্ধ রয়েছে।

এবিষয়ে পাকেরহাট হোটেল মালিক সমিতির সাধারন সম্পাদক রনজিত রায় জানান, ঘটনা ঘটনার পর থেকেই হোটেলে ক্রেতার সংখ্যা কমে গেছে এবং এরকম যদি চলতে থাকে তাহলে আমরা লোকসানের মুখে পরব তাই হোটেল বন্ধ রাখার সিন্ধান্ত নিতে বাধ্য হয়েছি।

পাকেরহাট হরিজন ঐক্য পরিষদের সদস্য দীপক জানান, আমারও তো মানুষ আর আমাদের তো অধিকার আছে হোটেল খাওয়ার তাহলে আমরা বঞ্চিত হব কেন ??

এ বিষয়ে খানসামা উপজেলা নির্বাহী অফিসার সাজেবুর রহমান জানান, এই সমস্যা সমাধানের জন্য দুপক্ষের সাথে আলোচনা চলছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য