ইসরাইলি সেনারা পূর্ব জেরুজালেম আল-কুদসে একজন ফিলিস্তিনি তরুণীকে গুলি করে হত্যা করেছে। ওই তরুণী ইসরাইলি পুলিশের ওপর ছুরি দিয়ে হামলা চালানোর চেষ্টা করেছিলেন বলে অভিযোগ তুলে তাকে হত্যা করা হয়।

ইসরাইলি পুলিশের একজন মুখপাত্র দাবি করেছেন, ওই ফিলিস্তিনি তরুণী দামেস্ক গেট-এর প্রবেশমুখে চাকু হাতে ইসরাইলি পুলিশ কর্মকর্তাদের নিকটবর্তী হতে চাইলে তাকে হত্যা করা হয়। কথিত ওই হামলা প্রচেষ্টায় কোনো ইসরাইলি পুলিশ আহত হননি বলেও তিনি জানান।

ফিলিস্তিনি স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় ১৬ বছর বয়সি ওই কিশোরীর পরিচয় প্রকাশ করেছে। এটি বলেছে, ফাতিমা আফিফ আব্দুর রহমান হিজেজি ছিলেন রামাল্লাহর নিকটবর্তী কুয়ারাত বানি জেইদ গ্রামের অধিবাসী।

এর আগে গত মাসের শেষ দিকে পশ্চিম তীরের আল-খলিল (হেবরন) শহর থেকে ইহুদিবাদী সেনারা ২৩ বছর বয়সি এক ফিলিস্তিনি নারীকে আটক করে। ইসরাইলি সেনারা দাবি করে ওই নারী তাদের ওপর হামলা চালাতে গিয়েছিলেন। ওই ঘটনায়ও কোনো ইসরাইলি সেনা আহত হয়নি।

সংবাদদাদাতরা বলছেন, নিরীহ ফিলিস্তিনি নাগরিকদের নির্বিচারে হত্যা করার অজুহাত হিসেবে ছুরিকাঘাতের প্রচেষ্টার অভিযোগ আনছে দখলদার ইসরাইলি সেনারা।

২০১৫ সালের আগস্টে পূর্ব জেরুজালেম আল-কুদসে অবস্থিত মুসলমানদের প্রথম কেবল মসজিদুল আকসায় ফিলিস্তিনিদের প্রবেশাধিকারের উপর সীমাবদ্ধতা আরোপ করার পর ইসরাইলি ও ফিলিস্তিনিদের মধ্যে উত্তেজনা বেড়ে যায় যা এখনো অব্যাহত রয়েছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য