দিনাজপুরের কাহারোলে চলতি মৌসুমের আগাম জাতের বোরো ধান কাঁটা শুরু হয়েছে। হঠাৎ কালবৈশাখী ঝড়ে অধিকাংশ ধান পড়ে গেছে। ধানের ভাল ফলন না হওয়ার আশংকায় এবার কৃষকের মুখে হাঁসি উল্লাস দেখা যাচ্ছে না। ২৪ টাকা কেজি দরে ধান ও ৩৪ টাকা কেজি দরে চাল ক্রয়ের ঘোষনা দেন সরকার।

এদিকে নতুন করে শ্রমিক স্বল্পতার কারণে দুশ্চিনতায় বোরো চাষীরা। কৃষকের বলছেন, উপজেলার সকল স্থানে আগাম জাতের ধান কাটামাড়াই শুরু হয়েছে। তবে অনেক এলাকায় শ্রমিক সংকট ও হঠাৎ বৃষ্টির কারণে জমিতে পানি জমে থাকায় তাদের পাঁকা বোরো ধান কাটতে পারছেন না। চাষীদের কষ্টার্জিত এইসব ফসল নষ্ট হয়ে যেতে পারে বলে তাদের মধ্যে নতুন করে শঙ্কাসৃষ্টি হয়েছে।

কাহারোল উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ বিভাগ সূত্রে জানা যায় উপজেলায় ৫ হাজার ৮ শত ২০ হেক্টর জমিতে বোরো ধান চাষাবাদ করা হয়েছে। আগাম বোরো ধান কাটামারা শুরু হয়েছে পুরাদমে। বোরো চাষীরা বোরো ধানের দিকে নজর রাখছেন। উপজেলা খাদ্য কর্মকর্তা সুত্রে জানা গেছে, সরকার চলতি বোরো মৌসুমে ২৪ টাকা কেজি ধান ও ৩৪ টাকা কেজি দরে চাল ক্রয়ে ঘোষনা দেন সরকার।

উপজেলায় এবার ২১৪২ মেট্রিক টন চাল মিলারদের নিকট থেকে ক্রয় করা হবে। এখন পর্যন্ত চাল ও ধান ক্রয় শুরু করা হয় নাই উপজেলায়। বর্তমানে কাহারোল উপজেলায় শ্রমিক সংকটের কারণে আগাম জাতের ধান কাটতে পারছে না কৃষক। পুরোদমে আগাম জাতের বোরো ধান কাঁটা মাড়াই শুরু হয়েছে। কাহারোল উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মোঃ শামীম বলেন আগাম বোরো ধান ভালই হয়েছে, তবে ঝড়ের কারণে ধান পড়ে গিয়ে কিছু ধান নষ্ট হয়ে গেছে। ফলে ফলন কম হওয়ার কিছু আশঙ্কা রয়েছে। আশানুরূপ না হলেও ফলন ভাল হবে বলে তিনি জানান।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য