ভারতের পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যে অবস্থান শক্ত করার অভিযানে নেমেছে দেশটির প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির ক্ষমতাসীন দল ভারতীয় জনতা পার্টি (বিজেপি) ।

এনডিটিভি এক প্রতিবেদনে লিখেছে, বিজেপি ২০১৯ সালের বিধানসভা নির্বাচনে পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের তৃণমূল কংগ্রেসকে পরাজিত করার লক্ষ্য স্থির করেছে

ওই লক্ষ্য বাস্তবায়নে মাঠে নেমেছেন বিজেপির সভাপতি অমিত শাহ। মঙ্গলবার পশ্চিমবঙ্গের বহুল আলোচিত নক্সালবাড়ি জেলা থেকে জনসংযোগ শুরু করেছেন তিনি।

জনসংযোগের শুরুতেই নক্সালবাড়ির দক্ষিণ কাতিয়াজোতি গ্রামের এক গরিব শ্রমিকের বাড়িতে দুপুরের খাবার খেয়েছেন অমিত ও বিজেপির রাজ্য সভাপতি দীলিপ ঘোষ।

কৃষি শ্রমিক গীতা মাহালি ও তার স্বামী রংমিস্ত্রি রাজুর ছোট কুঁড়ে ঘরের মাটিতে বিছানো চাদরে পা ভাঁজ করে বসে কলাপাতায় ভাত খেয়েছেন বিজেপি সভাপতি।

তরকারিতে বাংলার বিখ্যাত মাছের ঝোল বা মাছের কোনো পদ ছিল না। ভাতের সঙ্গে ডাল, পটল ভাজা ও কুমড়োর নিরামিষ, সঙ্গে ছিল সালাদ ও পাঁপড়।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, গরিবের ঘরে জামাই আদর পেয়েছেন আমিত শাহ। এ বিষয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে সম্মতিসূচক হাসিতে উত্তর দেন তিনি।

খাওয়ার সময় অমিত শাহ এর বাঁ পাশে লাল-সবুজ ছাপা শাড়ি পরা গীতা বসে ছিলেন। অমিতের অপর পাশে ছিলেন দীলিপ।

খাওয়াদাওয়া শেষে আপ্লুত গীতা বলেন, “আমার বাড়িতে কত বড় একজন মানুষ এসেছে!”

মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এলে তাকেও ভাত খাওয়াবেন কি-না, এমন প্রশ্নের উত্তরে গীতা ‘হ্যাঁ’ সূচক জবাব দেন। এ ঘটনার পর গীতার সঙ্গে সেলফি তুলতে ভিড় জমিয়েছে ওই এলাকার মানুষ।

২০১৪ সালে পশ্চিমবঙ্গের বিধানসভার নির্বাচনে পার্লামেন্টের ৪২টি আসনের মধ্যে মাত্র দুটিতে জয় পেয়েছিল বিজেপি, অপরদিকে নির্বাচনে জয়ী তৃণমূল ৩৪টি আসন পেয়েছিল।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য