ভারতের রাজধানী দিল্লির তিনটি মিউনিসিপ্যালিটি কর্পোরেশনের নির্বাচনে ‍তিনটিতেই বড় জয়ের পথে রয়েছে কেন্দ্রে ক্ষমতাসীন রাজনৈতিক দল ভারতীয় জনতা পার্টি (বিজেপি)।

রোববার দিল্লির উত্তর, দক্ষিণ ও পূর্ব, এই তিনটি মিউনিসিপ্যালিটি কর্পোরেশনে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়, বুধবার ওই নির্বাচনের ভোট গণনা করে ফলাফল ঘোষণা করা হবে।

এনডিটিভি জানিয়েছে, দিল্লির তিনটি মিউনিসিপ্যালিটি কর্পোরেশনের মোট ২৭২টি ওয়ার্ডের মধ্যে ১৮১টিতে এগিয়ে আছে বিজেপি, ৪৬টিতে অরবিন্দ কেজরিওয়ালের আম আদমি পার্টি (এএপি) এবং ২৯টিতে কংগ্রেস।

এর মধ্যে বিজেপি উত্তর মিউনিসিপ্যালিটি কর্পোরেশনের ১০৩টি ওয়ার্ডের মধ্যে ৬৫টি ওয়ার্ডে, দক্ষিণ মিউনিসিপ্যালিটি কর্পোরেশনের ১০৩টি ওয়ার্ডের মধ্যে ৬৭টিতে এবং পূর্ব মিউনিসিপ্যালিটি কর্পোরেশনের ৬৩ ওয়ার্ডের মধ্যে ৪৯টিতে এগিয়ে আছে।

২০১২ সালে দিল্লি মিউনিসিপ্যালিটি কর্পোরেশনকে ভেঙে তিনটি কর্পোরেশন গঠন করা হয়। তারপর প্রথমবারের নির্বাচন থেকে এবারের নির্বাচনে বিজেপি অনেক ভাল ফলাফল করেছে। উত্তরে সাতটি, দক্ষিণে ১২টি এবং পূর্বে ১৪টি নতুন ওয়ার্ডে জয় পেয়েছে দলটি।

দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী কেজরিওয়ালের দল এএপি দ্বিতীয় স্থান এবং কংগ্রেস তৃতীয় স্থান পেতে যাচ্ছে।

নির্বাচনে পরাজয় মেনে নিয়ে দিল্লি কংগ্রেসের সভাপতি অজয় মাকেন পদত্যাগ করেছেন। অপরদিকে পরাজয়ের জন্য ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনকে দায়ী করেছে এএপি।

এএপির দিল্লি বিষয়ক মন্ত্রী গোপাল রাই বলেছেন, “এটি মোদি ঢেউ নয়, এটি ইভিএম ঢেউ।”

দলটির অপর নেতা দিল্লির উপমুখ্যমন্ত্রী মনিশ সিসোদিয়া বলেছেন, “ইভিএম টেম্পারিং করা ছাড়া বিজেপির জয় অসম্ভব ছিল।”

বিজেপির সভাপতি অমিত শাহ্ বলেছেন, “দিল্লিবাসী নেতিবাচক রাজনীতি, অজুহাতের রাজনীতিকে প্রত্যাখ্যান করেছে। বিজেপির জয়ের জন্য দিল্লির ভোটারদের ধন্যবাদ।”

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির দক্ষ সরকার পরিচালনার কারণেই এ জয় সম্ভব হয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন তিনি।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য