একজন অভিনেত্রী হিসেবে সফল তিনি। মঞ্চ, টিভি নাটক এমনকি চলচ্চিত্রে অভিনয়ের জন্য তার খ্যাতি কম নেই। অনেক সম্মাননার পাশাপাশি জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারও পেয়েছেন। বলা হচ্ছে রোকেয়া প্রাচীর কথা। যাকে শুধু অভিনয়ে নয় রাজনীতির ময়দানেও দেখছেন সবাই।

এবার জনপ্রিয় এ অভিনেত্রী নেমেছেন অন্য মিশনে। নতুন প্রজন্মকে নিয়ে নতুনভাবে ভাবছেন রোকেয়া প্রাচী। কিন্তু ঠিক কি করতে যাচ্ছেন তিনি? এমন প্রশ্নের উত্তরই জানতে চাওয়া হয়েছিল। রোকেয়া প্রাচী বলেন, এ প্রজন্ম মুক্তিযুদ্ধের সঠিক ইতিহাস জানে না। ভাষা আন্দোলনের ইতিহাস জানে না।

এমনকি বঙ্গবন্ধু সম্পর্কেও সঠিক ধারণা নেই তাদের। তাই স্কুল, মাদরাসা ও কলেজের শিক্ষার্থীদের মাঝে সেসব জ্ঞান পৌঁছে দিতে নতুন মিশনে নেমেছেন তিনি। রোকেয়া প্রাচী আরো বলেন, আমাদের শিশুরা সাধারণত পাঠ্যবই পড়েই জানছে। কিন্তু ভাষা আন্দোলন, মুক্তিযুদ্ধ, কিংবা ১৫ই আগস্টের মতো ঘটনাগুলো জানার জন্য ওই পাঠ্যবইগুলো পর্যাপ্ত নয়।

এদেশের উত্থান সম্পর্কে সঠিক ধারণা তাদের থাকা উচিত। আমি মনে করি এই স্কুল, মাদরাসা ও কলেজের শিক্ষার্থীদের পাঠ্যবইয়ের বাইরে যদি কিছু পড়াশোনার ব্যবস্থা করানো যায় তাহলে তারা হয়তো বিপথগামী হবে না। ইতিহাস সম্পর্কে বিকৃতি ঘটবে না। এদেশে এখন সন্ত্রাসবাদ, জঙ্গিবাদ বেড়ে গেছে।

আমি চাই সঠিক ক্যাম্পেইনিংয়ের মাধ্যমের কোমলমতি শিশু ও কিশোরদের বিপথগামী হওয়া থেকে রক্ষা করতে। আর সেজন্যই আমার এই মিশন। আশা করছি একটি ইতিবাচক ফল পাবো। রোকেয়া প্রাচী তার এ মিশন সম্পর্কে আরো বিস্তারিত জানান, এটি শুরু করেছেন তারই জন্মস্থান ফেনী জেলা থেকে।

আর তা নিজের এলাকা সোনাগাজী উপজেলাতেই। এ নিয়ে গত দু’বছর ধরে দেশের বিভিন্ন স্থানে জরিপ করেছেন। বিভিন্ন স্কুল-কলেজের শিক্ষকদের সঙ্গে মতবিনিময় করেছেন। তরুণ প্রজন্মের মূল ঘাটতিগুলো কোথায় সেটা শনাক্ত করেন। ফল হিসেবে রোকেয়া প্রাচী ভাষা আন্দোলন, মুক্তিযুদ্ধ কিংবা বঙ্গবন্ধু সম্পর্কে সঠিক ধারণার অপর্যাপ্ততা পেয়েছেন।

আর তাই ঠিক করেছেন এ জায়গাটি নিয়ে কাজ করবেন। সব ঠিক থাকলে মে মাসের দ্বিতীয় সপ্তাহ থেকে তিনি তার এ নতুন কার্যক্রমের আনুষ্ঠানিক যাত্রা শুরু করবেন। এ প্রসঙ্গে তিনি আরো বলেন, আমার লক্ষ্যটা শিশু-কিশোরদের বিভিন্ন প্রতিযোগিতার মাধ্যমে তাদের মাঝে জ্ঞানের আলো ছড়িয়ে দেয়া।

সেটা হতে পারে চিত্রাঙ্কন, প্রবন্ধ লিখন প্রতিযোগিতা কিংবা অন্যকোনো আয়োজনে। তবে এ কাজ আমি একা করছি না। ফেনীতে থাকা অসংখ্য তরুণ-তরুণী আমার সঙ্গে আছে। তাদের নিয়ে নিয়মিত বিভিন্ন পরিকল্পনা করছি। যখন যে আইডিয়া আসছে সেটা শেয়ার করছি। আবার তাদের দেয়া আইডিয়াগুলো আমি গ্রহণ করছি। আমার কাছে এটা বড় একটা চ্যালেঞ্জ।

আমি বরাবরই দেশের কল্যাণে কাজ করে আসছি। আর সবক্ষেত্রে সফলতা ছিল। এটিও সফলভাবে করতে চাই। রোকেয়া প্রাচী জানান, আগামী মে মাসের শুরু হতে যাওয়া এ প্রকল্পের কাজ চলবে বছরব্যাপী। সোনাগাজী ছাড়াও ফেনীর প্রতিটি থানার স্কুল, মাদরাসা ও কলেজে তিনি এ কার্যক্রম চালিয়ে যাবেন। পরে দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে কাজটি করবেন বলে জানান জনপ্রিয় এ অভিনেত্রী।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য