কুড়িগ্রামের রাজারহাট উপজেলাবাসীর দীর্ঘদিনের দাবী অবশেষে পুরণ হতে যাচ্ছে। দীর্ঘদিন ধরে উপজেলাবাসী এ উপজেলায় অগ্নিনির্বাপণের জন্য ফায়ার সার্ভিস স্থাপেনের দাবী তুলে আসছিল।

এরই প্রেক্ষিতে ফায়ার সার্ভিস কর্তৃপক্ষ বেশ কয়েকবার জমি অধিগ্রহনের জন্য উপজেলার বিভিন্ন জায়গায় প্রস্তাবনা দিলেও কেউ সাড়া দেয়নি। ফলে ফায়ার সার্ভিস স্থাপনের কাজ স্থবির হয়ে যায়।

কিন্তু প্রতিবছর এ উপজেলায় ২০/২৫ কোটি টাকার মালামাল আগুনে ভস্মিভূত হয়ে যায়। আগুন লাগলে কুড়িগ্রাম, উলিপুর ও লালমনিরহাট থেকে অগ্নিনির্বাপণ গাড়ী আসার আগেই মালামাল ছাই হয়ে যায় বলে ক্ষতিগ্রস্থরা দাবী করে আসে। এ কারণে ফায়ার সার্ভিস দপ্তর তাদের কার্যক্রম বন্ধ না রেখে জমি অধিগ্রহনের চেষ্টা চালিয়ে যান।

দীর্ঘ ৬ বছর পর বর্তমান নির্বাহী অফিসার মো. রফিকুল ইসলামের ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় সকলের সহযোগীতায় ফায়ার সার্ভিস ষ্টেশনের প্রস্তাবিত জায়গা রাজারহাট ইউনিয়নের চাঁন্দামারী মৌজার চাকিরপশার বিল সংলগ্ন এলাকায় ৩৩শতাংশ জমি চুড়ান্ত হয়।

এ খবর উপজেলার অলিতে গলিতে পৌচ্ছিলে উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক ও সাবেক উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আবুনু মোঃ আক্তারুজ্জামানসহ উপজেলাবাসী ফায়ার সার্ভিস কর্তৃপক্ষকে অভিনন্দন জানান। বিষয়টি রাজারহাট ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মোঃ এনামুল হক নিশ্চিত করেন। এ জন্য গতবৃহস্পতিবার প্রস্তাবিত জায়গা সরেজমিনে পরিদর্শন করেছেন কুড়িগ্রামের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) মো. দেলোয়ার হোসেন।

এসময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. রফিকুল ইসলাম, উপজেলা প্রকৌশলী জি কে এম আনোয়ারুল আলম, সদর ইউপি চেয়ারম্যান মো. এনামুল হক সহ ফায়ার সার্ভিসের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাগণ।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য