মানুষের বীর্য পাচারের চেষ্টার সময় এক ব্যক্তিকে গ্রেপ্তার করেছে থাইল্যান্ডের পুলিশ।

ছয়টি কাচের শিশিতে করে ওই ব্যক্তি লাওসে এসব বীর্য পাচারের চেষ্টা করছিলেন বলে বিবিসির এক প্রতিবেদনে জানানো হয়।

এতে কর্তৃপক্ষের বরাত দিয়ে বলা হয়, থাইল্যান্ডের উত্তরাঞ্চলীয় নঙ খাই শহর দিয়ে সীমান্ত অতিক্রমের সময় ওই ব্যক্তির ব্যাগে থাকা একটি নাইট্রোজেন বাক্সের ভেতর ওই শিশিগুলো পাওয়া যায়।

পুলিশ বলছে, চীনা ও ভিয়েতনামের কয়েকব্যক্তির কাছ থেকে সংগ্রহের বীর্যভরতি এসব শিশি লাওসের রাজধানীর ভিয়েনতিয়ানের একটি ফার্টালিটি ক্লিনিকে নিয়ে যাচ্ছিলেন বলে গ্রেপ্তার ব্যক্তি স্বীকার করেছেন।

থাইল্যান্ড ও ক্যাম্বোডিয়ায় সারাগেসি নিষিদ্ধের পর প্রতিবেশী লাওসে বাণিজ্যিক সারাগেসি ব্যাপক আকারে বাড়তে দেখা যায়।

ব্যাংকক পোস্টের এক খবরে বলা হয়, গ্রেপ্তার ওই থাই চোরাচালানকারী গত বছর একইভাবে ১২ বার লাওসে গিয়েছেন, যেখানে ব্যাংককের বিভিন্ন ক্লিনিক থেকে বীর্য সংগ্রহ করে তিনি তা লাওসের কয়েকটি ক্লিনিকে পৌঁছে দিয়েছেন।

ক্যাম্বোডিয়ার একটি হাসপাতালেও তিনি কয়েকটি চালান পৌঁছে দিয়েছেন বলে পত্রিকাটির প্রতিবেদনে বলা হয়।

বেশ কয়েকটি স্ক্যান্ডালের পর বিদেশিদের কাছ থেকে অর্থ নিয়ে থাই নারীদের সারোগেট হিসেবে কাজ করা ২০১৫ সালে নিষিদ্ধ করে দেশটির সরকার। আর পরের বছর সারোগেসি পুরোপুরি নিষিদ্ধ করে ক্যাম্বোডিয়া।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য