চলতি মাসে দ্বিতীয়বারের মতো প্রাণঘাতী ভূমিধসে কলম্বিয়ায় অন্তত ১৭ জন নিহত হয়েছে।

রাজধানী বোগোতার পশ্চিমে ক্যালডাস প্রদেশের রাজধানী মানিজালেসের এ ঘটনায় আরো সাতজন নিখোঁজ রয়েছে বলে বুধবার জানিয়েছে দেশটির সরকার।

ভারি বৃষ্টিপাতের পর ধসে পড়া কাদা ও পাথরের স্রোতে শহরটির বেশ কয়েকটি আবাসিক এলাকা চাপা পড়েছে। মৃতের সংখ্যা আরো বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।

রেডক্রস, বেসামরিক প্রতিরক্ষা, দমকল ও সশস্ত্র বাহিনীর সদস্যরা কাদায় ঢাকা পড়া বিধ্বস্ত ভবনগুলোতে নিখোঁজদের খোঁজে তল্লাশি চালাচ্ছে।

মানিজালেস পরিদর্শনে এসে প্রেসিডেন্ট হুয়ান ম্যানুয়েল সান্তোস বলেছেন, “নিখোঁজদের খুঁজে বের করার চেষ্টা করছি আমরা, দুর্ভাগ্যজনকভাবে মৃতের সংখ্যা আরো বাড়বে।”

শহরটির অন্তত ৫৭টি বাড়ি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে বলে জানিয়েছে সরকার। স্থানীয় গণমাধ্যম জানিয়েছে, এক রাতে শহরটিতে এক মাসের সমপরিমাণ বৃষ্টিপাত হয়েছে।”

আবহাওয়ার পূর্বাভাসে এই এলাকায় আরো অন্তত দুই দিন বৃষ্টিপাত অব্যাহত থাকতে পারে বলে জানানো হয়েছে।

ভূমিধসে ক্ষতিগ্রস্ত এলাকাগুলোতে পানি, বিদ্যুৎ ও গ্যাস সরবরাহ বন্ধ রাখা হয়েছে।

সাম্প্রতিক ব্যাপক বৃষ্টিপাতে কারণে কলম্বিয়ার বহু প্রাদেশিক শহর ভূমিধস ও বন্যার হুমকির মুখে রয়েছে। আন্দিজ পর্বতমালার পাদদেশের এসব শহরের অনেক ঘরবাড়ির স্থায়ী কোনো কাঠামো না থাকায় এগুলো চরম ঝুঁকির মুখে রয়েছে।

চলতি মাসের প্রথমদিকে দেশটির পুটুমায়ো প্রদেশের মোকোয়া শহরে ভয়াবহ এক বন্যা ও ভূমিধসের ঘটনায় ৩২০ জন নিহত ও কয়েক হাজার মানুষ বাস্তুচ্যুত হয়।

 

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য