লাক্সতারকা ঈশানা খান। নাটক-বিজ্ঞাপনে সমানতালে তার উপস্থিতি চোখে পড়ার মতো। এই অভিনেত্রীর ক্যারিয়ারে ঈদ ব্যস্ততার হাওয়া লেগেছে। এরই মধ্যে ঈশানা ঈদকে টার্গেট করে একাধিক নাটক-টেলিফিল্মে অভিনয় করেছেন। আগামীতে আরও কিছু নাটকে অভিনয় করবেন জানান।

ঈশানার সঙ্গে যখন কথা হচ্ছিল তখন তিনি রাজধানীর ৩০০ফিটে নতুন একটি ধারাবাহিক নাটকের শুটিংয়ে ছিলেন। মুঠোফোনের ওপাশ থেকে ঈশানা বলেন, ‘ঈদের ব্যস্ততা শুরু হয়ে গেছে। চৈত্রফুল, প্রেমিক দর্জি, অ্যালার্ম ম্যান, আহত পাখির ডানা ইত্যাদি নাটকের শুটিং শেষ করেছি। এছাড়া আরও বেশ কিছু কাজ করবো। টুকটাক শিডিউল দিচ্ছি।’

এত নাটকে চরিত্রের ভিড়ে ঈশানা চেষ্টা করছেন বৈচিত্রময় সব চরিত্রে অভিনয় করতে। তার কথা, আমি সবসময় ব্যতিক্রমী চরিত্রে অভিনয়ের চেষ্টা করি। তবে এটা বেশিরভাগ ডিপেণ্ড করে নাটকের গল্পের উপর। তারপরও আমি একটু লাকি। ভালো ভালো চরিত্রগুলো আমার বেলায় জুটে যায়। আর এসব কাজ থেকেই প্রতিনিয়ত নতুন কিছু শেখার আগ্রহটা আমার মধ্যে ভীষণভাবে কাজ করে।’

ঈশানা বলেন, ‘আমার অভিনয় ক্যারিয়ার শুরু হয় অ্যাবনরমাল একটা মেয়ের চরিত্র দিয়ে। এরপর বহু ব্যতিক্রমী চরিত্রে কাজ করছি। গ্রামীণ চরিত্র কিংবা শহুরে আলট্রা মর্ডান সব চরিত্রেই অভিনয় করছি। তবে আমার অনেক পছন্দের চরিত্র হচ্ছে অ্যাভেঞ্চার টাইপের কোনো চরিত্রে অভিনয় করা। যেটা আমি এখনও পাইনি। অবশ্য এধরনের চরিত্র নির্ভর নাটক আমাদের দেশে কম নির্মিত হয়।’

এদিকে, ঈশানা অভিনীত দুইটি ধারাবাহিক নাটক প্রচারে আছে। একটি আরটিভিতে ‘শান্তি অধিদপ্তর’ এবং অন্যটি দীপ্ত টিভিতে ‘খেলাঘর’। আর গেল মাসে চিত্রনায়কের ইমনের সঙ্গে একটি কোমল পানীয়ের বিজ্ঞাপনে কাজ করেছেন। যেটা শিগগির প্রচারে আসবে।

চলচ্চিত্রের অভিনয় করার ইচ্ছে আছে কিনা জানতে চাইতে ঈশানা মুচকি হাসলেন। বললেন, ‘এই প্রশ্নের সম্মুখীন আমাকে মাঝেমধ্যেই হতে হয়। বড় পরিসরে কাজ করতে হলে নানা কিছু পরিকল্পনা করে আগাতে হয়। তবে হ্যাঁ, চলচ্চিত্রে অভিনয়ের ইচ্ছে আছে। একটা চরিত্রের অপেক্ষায় আছি যেটার অফার আসলে হয়তো না করতে পারবো না। কিংবা তেমন চরিত্র এবং চলচ্চিত্র আগে কেউ দেখিনি। দেখা যাক কি হয়!’

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য