বেতন বৃদ্ধিসহ ৮ দফা দাবিতে ধর্মঘট কর্মসূচী পালনের একদিন পর জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও জেমকন কর্তৃপক্ষের আশ্বাসের প্রেক্ষিতে ধর্মঘট স্থগিত করেছে শ্রমিকরা। রোববার সন্ধায় জেমকন লিমিটেডের সামনে জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান উপস্থিত হয়ে ৮ দফা দাবির মধ্যে ৬টি দাবি বিবেচনার আশ্বাস দিলে শ্রমিকরা ধর্মঘট স্থগিত করেন।

শ্রমিকরা জানায়, আগামী বৃহস্পতিবার পর্যন্ত আমাদের কাজ করতে বলা হয়েছে। সেদিন আমাদের এক সপ্তাহের বিলের সাথে কর্তৃপক্ষের বিবেচনাকৃত বিল প্রদান করা হবে। আমাদের কাঙ্খিত হাজিরা নিশ্চিত হলে আমরা পূণরায় কাজ করবো অন্যথায় ধর্মঘট কর্মসূচী শনিবার থেকে জোরদার করা হবে।

শ্রমিকদের দাবিগুলোর মধ্যে ১২৫ টাকার হাজিরা বৃদ্ধি, কারখানায় শ্রমিকদের যে কোন দুর্ঘটনায় চিকিৎসার খরচ কর্তৃপক্ষকে বহন, সরকারী ছুটি বা কোন দিবসে কারখানা বন্ধ থাকিলে দিনের হাজিরা প্রদান, শ্রমিকদের হুমকি বা গালিগালাজ বন্ধ ও নিজের কর্মস্থলে শ্রমিককে কর্মনিয়োগের দাবিগুলো বিবেচনা করা হবে বলে আমাদের জানানো হয়েছে। তবে ম্যানেজারকে বদলী ও শুক্রবার হাজিরা প্রদানের বিষয়টি নাকচ করেছেন কর্তৃপক্ষ।

জেমকন লিমিটেডের ম্যানেজার মো: কামরুল ইসলাম বলেন, আমরা রিকুয়েস্ট করেছি শ্রমিকরা কাজ করছে। এর বাইরে আমি কিছু বলতে পারছি না।

জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আলহাজ আমানুল্লাহ বাচ্চু জানান, শ্রমিকদের অনুরোধের প্রেক্ষিতে ঘটনাস্থলে গিয়ে জেমকন কর্তৃপক্ষের সাথে আলোচনা করেছি। যে দাবিগুলো শ্রমিকদের রুটি-রুজির নিশ্চয়তা দেয় সেই দাবিগুলো বিবেচনা করা হবে বলে আমাকে জানানো হয়েছে। সমবেত শ্রমিকরা আমার কথাকে শ্রদ্ধা জানিয়ে ধর্মঘট স্থগিত করেছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য