দিনাজপুর সংবাদাতাঃ রংপুর বিভাগীয় কমিশনার কাজী হাসান আহমেদ বলেছেন, মাটি ও মানুষের খেলা কাবাডিকে আরো জনপ্রিয় করতে হবে। অতীতে এই খেলা গ্রাম-গঞ্জের সাধারণ মানুষ উপভোগ করত। কালের বিবর্তনে আজ তা হারিয়ে গেছে। আমরা চাই কাবাডি খেলার খেলোয়াড়রা আগামীতে দেশে-বিদেশে কাবাডি খেলে দেশের সুনাম বয়ে আনবে।

রোববার বড় ময়দানের স্পোর্টস ভিলেজ কাবাডি মাঠে বাংলাদেশ কাবাডি ফেডারেশনের ব্যবস্থাপনায় দিনাজপুর পুলিশ প্রশাসনের সহযোগিতায় ও জেলা ক্রীড়া সংস্থার আয়োজনে মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস বিভাগীয় কাবাডি প্রতিযোগিতা-২০১৭ এর চুড়ান্ত খেলা ও পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে তিনি প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথাগুলো বলেন। এডিশনাল ডিআইজি (ক্রাইম এন্ড অপারেশন) চৌধুরী মঞ্জুরুল কবীর, পিপিএম (বার) এর সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন জেলা প্রশাসক মীর খায়রুল আলম, পুলিশ সুপার মোঃ হামিদুল আলম ও জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক সুব্রত মঞ্জুমদার ডলার।

শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) মাহাফুজ্জামান আশরাফ, দিনাজপুর চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রির সভাপতি রেজা হুমায়ুন ফারুক চৌধুরী, কাবাডি উপ-কমিটির আহ্বায়ক মোঃ কামরুজ্জামান, জেলা ক্রীড়া সংস্থার সহ-সভাপতি মোসাদ্দেক হোসেন চৌধুরী পাপ্পু, মোঃ আজিজার রহমান, অতিরিক্ত সাধারণ সম্পাদক মোঃ আসলাম হোসেন, কোষাধ্যক্ষ জায়েদী পারভেজ অপূর্ব, নির্বাহী সদস্য আনিজ হোসেন দুলাল, মিজানুর রহমান পাটোয়ারী বাবু, সমীরণ ঘোষ, অরুণ সরকার, আনোয়ারুল ইসলাম সুমি, মোস্তাক আহমেদ, মহিলা ক্রীড়া সাধারণ সম্পাদক জিনাত আরা মিলি, মোঃ জুলফিকার আলী।

খেলা পরিচালনা করেন আন্তর্জাতিক রেফারী এসএমএ মান্নান, রেজাউল ইসলাম, বাদশা মিয়া, রহমত আলী, আনোয়ারুল ইসলাম, মহসীন আলী, হামিদুর রহমান, আব্দুল লতিফ। রংপুর বিভাগের ৮ জেলার কাবাডি দলকে নিয়ে এই খেলা শুরু হয় ১৯ মার্চ। রোববার চুড়ান্ত খেলায় অংশ নেয় দিনাজপুর জেলা কাবাডি দল বনাম লালমনিরহাট জেলা কাবাডি দল। খেলায় চ্যাম্পিয়ন হয় দিনাজপুর জেলা কাবাডি দল এবং রানার্স আপ হয় লালমনিরহাট জেলা কাবাডি দল। প্রধান অতিথি ও বিশেষ অতিথিদ্বয় চ্যাম্পিয়ন ও রানার্স আপ ট্রফি প্রদান করেন।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য