মোঃ রজব আলী, ফুলবাড়ী থেকেঃ দিনাজপুরের ফুলবাড়ীতে জমি নিয়ে বিরোধের জের ধরে প্রতিপক্ষের বাড়ীঘরে হামলা ও লুটপাটের ঘটনা ঘটেছে। এই ঘটনায় ২হামলাকারিকে আটক করেছে পুলিশ। গত মঙ্গলবার সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় পৌর এলাকার কানাহার খালাসিপাড়া গ্রামে এই ঘটনা ঘটে।

বাড়ীর মালিক খাতিজা বেগম বলেন, কানাহার মৌজার ২৮২নং দাগে দেড়শতক জমি নিয়ে বিরোধ চলে একই এলাকার অবসরপ্রাপ্ত পূলিশ সদস্য জাহাঙ্গীর আলম ও তার পুত্র জিআরপি পুলিশ ফরিদের সাথে। এই বিরোধকে কেন্দ্র করে অবসরপ্রাপ্ত পুলিশ সদস্য জাহাঙ্গীর আলম এর ছেলে ফরিদ হোসেন, ফারুক হোসেন ও কণ্যা বেবী বেগম প্রায় সময় তাদের বাড়ীতে হামলা করে ও তাদের বিরুদ্ধেই বিভিন্ন সময় মিথ্যা মামলা দায়ের করে হয়রানী করে আসছিল।
[ads1]
এরই মধ্যে গত মঙ্গলবার একটি মামলায় হেরে গিয়ে তারা ক্ষিপ্ত হয়ে তার বাড়ীতে হামলা চালায়। বাড়ী ঘরে হামলা চালিয়ে তার টিনের ঘেরা বাড়ী ঘর ভাংচুর করে এবং ঘরের আসবাবপত্র ভাংচুর করে ডিগিতে ফেলে দেয় এবং ঘরে থাকা সোনার গহনা ও নগদ টাকা লুট করে নিয়ে যায়। এই ঘটনায় খাতিজা বেগম ৪জনকে আসামী করে ওইদিন রাতেই ফুলবাড়ী থানায় মামলা দায়ের করলে থানা পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে জাহাঙ্গীর আলম এর ছেলে ফরিদ ও মেয়ে বেবীকে আটক করে।

এ বিষয়ে অবসরপ্রাপ্ত পুলিশ সদস্য জাহাঙ্গীর আলমের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, আমার ছেলে পুলিশ আমার বাড়ীর সামনে খাতিজা জায়গা কিনে আমার চলাফেরা অসুবিধার সৃষ্টি করেছে। এই জায়গা ছেড়ে না দেওয়া পর্যন্ত এই বিরোধ চলবে বলে তিনি প্রতিপক্ষকে হুঁশিয়ারী করেন।

খাতিজা বেগমের স্বামী মাহাবুব আলম বলেন, গত ২০১২ সালের ১৮নভেম্বর আবুল কাশেমের নিকট আমার বাড়ী সংলগ্ন দেড়শতক জায়গা খরিদ করে ঘর বাড়ী নির্মাণ করে বসবাস করছেন। এতে তার প্রতিপক্ষ অবসরপ্রাপ্ত পুলিশ সদস্য ক্ষিপ্ত হয়ে ১৪/১৫টি মিথ্যা মামলা করে তাদের পরিবারকে হয়রানী করছে। কয়েকদফায় পৌরমেয়র বিষয়টি মিমাংসা করলেও তারা কোনো মিমাংসা মানে নাই। এমনকি গত মঙ্গলবার তাদের দায়ের করা মিথ্যা মামলা আদালতে খারিজ হলে তারা বাড়ীতে এসে এই হামলা চালায়।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য