দিনাজপুর সংবাদাতাঃ ছোটবেলা থেকেই বঙ্গবন্ধু মানুষকে ভালোবাসতেন। ছাত্র অবস্থায়ই গরিব-দুঃখী মানুষের প্রতি সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিতেন তিনি। বৃদ্ধ ও গরীব মানুষকে নিজের গায়ের চাদর পরিয়ে দিতেন শীত নিবারনের জন্য। বৃষ্টির সময় নিজের ছাতা দিয়ে দিতেন গরিব সহপাঠীকে। অভাবের সময় এলাকায় গরিব মানুষদের পিতার গোলা থেকে ধান চাল বিতরণ করে দিতেন। মোটকথা- সাধারণ মানুষের কাছে শেখ মুজিব ছিলেন গরীবের বন্ধু।

১৭ মার্চ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৯৮তম জন্মদিন উপলক্ষ্যে মানিক পীর উচ্চ বিদ্যালয়ে বৃহস্পতিবার সকালে বঙ্গবন্ধু শিশু-কিশোর মেলা আয়োজিত বিশাল শিশু সমাবেশ, দোয়া মাহফিল, আলোচনা সভা, গুণীজন সংবর্ধনা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. মু. আবুল কাশেম উপরোক্ত কথাগুলো বলেন। অনুষ্ঠানটি উদ্বোধন করেন দিনাজপুর জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আজিজুল ইমাম চৌধুরী।

দিনাজপুর প্রেসক্লাবের সভাপতি চিত্তঘোষের সভাপতিত্বে এতে বিশেষ অতিথি ছিলেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মাহফুজ্জামান আশরাফ, দিনাজপুর সদর উপজেলা চেয়ারম্যান আলহাজ্ব মোঃ ফরিদুল ইসলাম, জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি আলতাফুজ্জামান মিতা, বঙ্গবন্ধু পরিষদের সাধারণ সম্পাদক মোঃ শফিকুল ইসলাম, কেন্দ্রীয় বঙ্গবন্ধু শিশু-কিশোর মেলার মুখপাত্র ও সিনিয়র সাধারণ সম্পাদক মনিরুজ্জামান জুয়েল, মানিক পীর উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা সেলিনা জাহান।

স্বাগত বক্তব্য রাখেন বঙ্গবন্ধু শিশু-কিশোর মেলার ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মোঃ শাহজাহান নভেল। বক্তব্য রাখেন, সহ-সভাপতি অধ্যাপক আব্দুস সবুর, সাধারণ সম্পাদক আবুল কাশেম লিটন। সভার আগে বর্ণাঢ্য র‌্যালী ও পতাকা উত্তোলনের মাধ্যমে আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করা হয়। এরপর জন্মদিনের কেক কাটা হয়। সবাইকে নিয়ে বঙ্গবন্ধুর রুহের মাগফিরাত কামনা করে বিশেষ মুনাজাত করা হয়।

পরে সেখানে মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। সভায় সমাজের বিভিন্ন ক্ষেত্রে বিশেষ অবদানের স্বীকৃতি স্বরূপ ৬ জন গুণীজনকে ‘মুক্তিযুদ্ধ স্মৃতি পদক-২০১৭’ সম্মাননা প্রদান করা হয়। পদকপ্রাপ্তগণ হলেন- রাজনীতি ও সমাজসেবায় আব্দুস সামাদ, সংস্কৃতিতে বিশিষ্ট সংগঠক ও নাট্য ব্যাক্তিত্ব শাহজাহান শাহ্, সংগ্রামী নারী মুক্তি আন্দোলনে আজাদী হাই, নারী উদ্যোক্তা ও সমাজকর্মী সেলিনা হক, শিশু চক্ষু রোগ বিশেষজ্ঞ ডাঃ ইলিয়াস আলী খান এডিন, প্রাণী প্রেমিক আলহাজ্ব মোয়াজ্জেম হোসেন।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য